‘জয় বাংলা’ স্লোগান দিয়ে বাঁধ কেটে দিল গ্রামবাসী

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি দিনাজপুর
প্রকাশিত: ০৯:৪১ পিএম, ১৪ জানুয়ারি ২০২০

অস্ত্র উঁচিয়ে গ্রামের ছয় শতাধিক নারী-পুরুষ ‘জয় বাংলা’ স্লোগান দিয়ে দিনাজপুরের নবাবগঞ্জ আশুড়ার বিল ও শেখ রাসেল জাতীয় উদ্যানের পাশে নির্মিত ক্রসড্যামের বাঁধ কেটে দিয়েছে।

মঙ্গলবার (১৪ জানুয়ারি) বেলা সাড়ে ১১টার দিকে নবাবগঞ্জ আশুড়ার বিলের পাশে হরিপুর এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। এ অবস্থায় উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে বিষয়টি জানালে বিরামপুর ও দিনাজপুর পুলিশ লাইনস এবং র‌্যাব-১৩ সদস্যরা এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনেন। ক্রসড্যামের বাঁধ কেটে দেয়ায় মাহমুদপুর গ্রামের প্রায় ২০ বিঘা জমির বীজতলা পানিতে তলিয়ে গেছে।

স্থানীয় সূত্র জানায়, সোমবার গভীর রাতে গ্রামবাসী ক্রসড্যামের বাঁধ কেটে পালিয়ে যায়। মঙ্গলবার সকালে প্রশাসনের সহযোগিতায় বাঁধটি মেরামত করা হলে ওই গ্রামবাসী আবার প্রশাসনের সামনেই বাঁধটি কেটে চলে যায়।

ইউএনও নাজমুন নাহার বলেন, সোমবার গভীর রাতে গ্রামবাসী শেখ রাসেল জাতীয় উদ্যান সংলগ্ন আশুড়ার বিলে নির্মিত ক্রসড্যামের উত্তর পাশের বাঁধের পাশে দুটি অংশ কেটে ফেলেছে- এমন সংবাদে উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) আল মামুন ও পুলিশ প্রশাসনকে সঙ্গে নিয়ে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করি। পরে স্থানীয়দের সহযোগিতায় বাঁধটিতে মাটি ও গাছের গুঁড়ি দিয়ে বন্ধ করে দেয়া হয়।

Dinajpur

তিনি আরও বলেন, বাঁধটি মেরামতের পরে দুপুরে ক্রসড্যামের সংলগ্ন উত্তরপাশের হরিপুর গ্রামের প্রায় ছয় শতাধিক নারী-পুরুষ দেশীয় অস্ত্র নিয়ে এসে ওই বাঁধটি আবার কেটে দিয়ে চলে যায়। এ সময় গ্রামবাসীদের শান্ত হতে বললেও কোনো কথা শোনেননি তারা। এ ঘটনায় উত্তেজনা বিরাজ করলে বিষয়টি ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে জানানো হয়। পরে পাশের বিরামপুর ও দিনাজপুর পুলিশ লাইনস এবং র‌্যাব সদস্যরা ঘটনাস্থলে উপস্থিত হলে পরিস্থিতি শান্ত হয়।

স্থানীয়রা জানায়, আশুড়ার বিলের পাশে প্রায় ১৯ হেক্টর জমিতে আমন ও ইরি ধান চাষ করা হতো। কিন্তু ক্রসড্যাম নির্মাণের ফলে কোনো ধান রোপণ করা হয় না। ১৯৪৪ সাল থেকে গ্রামবাসী এসব জমি ভোগদখল করে আসছে।

উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) আল মামুন বলেন, গ্রামবাসীর দাবি অযৌক্তিক। আশুড়ার বিলের পাশে জমিগুলো সরকারের খাস জমি।

বিরামপুর সার্কেলের সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার মিথুন সরকার বলেন, ঘটনার খবর পেয়ে সঙ্গে সঙ্গে পুলিশ নিয়ে ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়েছি। পরিস্থিতি এড়াতে পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। বিকেল সাড়ে ৪টায় স্থানীয়দের সহায়তায় ভেঙে ফেলা বাঁধটি মাটি ও গাছের গুঁড়ি দিয়ে বন্ধ করে দেয়া হয়।

এ ঘটনার পর দিনাজপুর অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক আবু সালেহ মো. মাহ্ফুজুল আলম ও উপজেলা চেয়ারম্যান আতাউর রহমান ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন।

প্রসঙ্গত, ২০১৯ সালে আশুড়ার বিলের পানি ধরে রাখার জন্য ১৮ লাখ ৬৪ হাজার টাকা ব্যয়ে ক্রসড্যামটি নির্মাণ করা হয়।

এমদাদুল মিলন/এএম/পিআর