অবশেষে দুই বাংলাদেশির মরদেহ ফেরত দিলো বিএসএফ

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি নওগাঁ
প্রকাশিত: ১১:১৩ পিএম, ২৫ জানুয়ারি ২০২০
ফাইল ছবি

নওগাঁর পোরশা উপজেলার দুয়ারপাল সীমান্তে নিহত দুই বাংলাদেশির মরদেহ ৩ দিন দিন পর ফেরত দিয়েছে ভারতীয় সীমান্তরক্ষী বাহিনী (বিএসএফ)।

শনিবার রাত ৮টার দিকে পতাকা বৈঠকের মাধ্যমে বর্ডার গার্ড বাংলাদেশের (বিজিবি) কাছে নিহতদের মরদেহ ফেরত দেয় বিএসএফ।

নিহতরা হলেন- পোরশা উপজেলার নিতপুর ইউনিয়নের কাঁটাপুকুরের মৃত জিল্লুর রহমানের ছেলে কামাল হোসেন এবং বিষ্ণপুর বিজলীপাড়ার শুকরার ছেলে রনজিত কুমার। তাদের মরদেহ দুটি পোরশা থানার পুলিশের কাছে হস্তান্তর করেছে বিজিবি।

বিজিবি ও স্থানীয় এলাকাবাসী সূত্রে জানা গেছে, গত বুধবার রাতে মফিজুল ইসলাম, কামাল হোসেন ও রনজিত কুমারসহ ১০-১২ জনের একটি দল পোরশা দুয়ারপাল সীমান্ত এলাকার ২৩১/১০(এস) মেইন পিলারের নীলমারী বিল দিয়ে ভারতের অভ্যন্তরে অবৈধভাবে গরু নিতে প্রবেশ করেন। গরু নিয়ে বাংলাদেশে ফেরার পথে বৃহস্পতিবার ভোর রাতে ভারতের ক্যাদারীপাড়া ক্যাম্পের বিএসএফ জোয়ানরা তাদের লক্ষ্য করে গুলি ছোড়েন। এ সময় অন্যরা পালিয়ে আসতে সক্ষম হলেও তিন গরু ব্যবসায়ী গুলিবিদ্ধ হয়। মফিজুল ইসলাম নিহত হয়ে বাংলাদেশের ২০০ গজ অভ্যন্তরে পড়েছিলেন। আর গরু ব্যবসায়ী রনজিত কুমার ও কামাল হোসেনের মরদেহ ভারতের ৮০০ গজ অভ্যন্তরে পড়ে ছিল। পরে দুপুর তাদের মরদেহ নিয়ে যায় বিএসএফ সদস্যরা।

এ নিয়ে ঘটনার দিন বিকেল ৫টা থেকে সন্ধ্যা ৭টা পর্যন্ত দুয়ারপাল সীমান্তের শূন্যরেখায় দুই দেশের সীমান্তরক্ষী বাহিনীর মধ্যে পতাকা বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। এতে বিএসএফরা তিন বাংলাদেশিকে হত্যার কথা স্বীকার করে এবং ঘটনায় দুঃখ প্রকাশ করে। বৈঠকে দুজনের মরদেহ যাবতীয় প্রক্রিয়া শেষে ফেরত দেয়ার অঙ্গীকার করে বিএসএফ সদস্যরা। নিহতের তিন দিন পর আজ শনিবার রাতে তাদের মরদেহ ফের দেয়।

পোরশা উপজেলার হাঁপানিয়া ক্যাম্পের নায়েক সুবেদার মোখলেছুর রহমান বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, বিএসএফের কাছ থেকে দুজনের মরদেহ পাওয়ার পর পোরশা থানা পুলিশের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।

পোরশা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শাহিনুর ইসলাম বলেন, বিজিবির কাছ থেকে দুজনের মরদেহ থানায় হস্তান্তর করা হয়। নিহতদের পরিবারের কাছে মরদেহ হস্তান্তরের প্রক্রিয়া চলছে।

আব্বাস আলী/এমএসএইচ