কুষ্ঠ প্রতিবন্ধীদের ২৫ লাখ টাকা সহায়তা করল দি লেপ্রসি মিশন

জাগো নিউজ ডেস্ক
জাগো নিউজ ডেস্ক জাগো নিউজ ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৬:০২ পিএম, ২২ মে ২০২০

করোনাভাইরাসে থমকে গেছে সারাবিশ্ব। এতে থমকে গেছে কর্মযজ্ঞ ও অর্থনীতি। একই অবস্থা বাংলাদেশেও।ভাইরাসটির ছোবলে এমন পরিস্থিতিতে দেয়ালে পিঠ ঠেকে গেছে দিনমজুর শ্রেণি ও অসহায়-হতদরিদ্রদের। দেশের এমন অবস্থায় সরকার ইতোমধ্যে বিভিন্ন ধরনের উদ্যোগ গ্রহণ করেছে।

৬৪টি জেলা প্রশাসন থেকে প্রাপ্ত তথ্য অনুযায়ী, ১১ পর্যন্ত সারা দেশে ত্রাণ হিসেবে চাল বরাদ্দ করা হয়েছে এক লাখ ৫৩ হাজার ২১৭ টন এবং বিতরণ করা হয়েছে এক লাখ ১৫ হাজার ৩৩ টন। এতে উপকারভোগী এক কোটি পরিবারের সাড়ে চার কোটির বেশি মানুষ

সর্বশেষ প্রধানমন্ত্রীর ঈদ উপহার হিসেবে আড়াই হাজার টাকা করে নগদ অর্থ সহায়তা পেয়েছেন দেশের ক্ষতিগ্রস্ত ৫০ লাখ পরিবার। প্রতি পরিবারে ধরা হয়েছে ৪ জন সদস্য। সেই হিসাবে নগদ সহায়তায় উপকার ভোগী প্রায় ২ কোটি মানুষ। এ জন্য বরাদ্দ দেয়া হয়েছে এক হাজার ২৫০ কোটি টাকা। এ টাকা পাঠানোর খরচও বহন করেছে সরকার। সরকারের পাশাপাশি দেশের অসহায় মানুষের পাশে দাঁড়িয়েছে বিভিন্ন রাজনৈতিক দল ও প্রতিষ্ঠান। অনেকে সহযোগিতা করেছেন ব্যক্তি উদ্যোগেও।

অসহায় মানুষকে সরকারের নগদ সহায়তা দেখে অনুপ্রাণিত হয়ে পাঁচ হাজার ৪১ জন অসহায় কুষ্ঠ প্রতিবন্ধীকে তাদের মোবাইল ব্যাংকিং নম্বরে অর্থ সহায়তা দিয়েছে দি লেপ্রসি মিশন ইন্টারন্যাশনাল-বাংলাদেশ।

জাগো নিউজকে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন দি লেপ্রসি মিশন ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশের উত্তরাঞ্চলের সমাজভিত্তিক পুনঃবাসন প্রকল্পের ব্যবস্থাপক দেলোয়ার হোসেন।

তিনি জানান, দি লেপ্রসি মিশন ইন্টারন্যাশনাল-ইউকে কর্তৃক ২৫ লাখ ৭১ হাজার টাকা কোভিড-১৯ এর প্রাদুর্ভাবে ক্ষতিগ্রস্ত স্বনির্ভর দলের ৫ হাজার ৪১ জন সদস্যদের মাঝে ডিজিটাল পদ্ধতিতে (বিকাশ বা নগদ) বিতরণ করা হয়েছে।

তিনি বলেন, কুষ্ঠ আক্রান্ত প্রতিবন্ধীদের মধ্যে নীলফামারীতে এক হাজার ৪৩৮ জনকে সাত লাখ ১৯ হাজার, পঞ্চগড়ে ৭৬২ জনকে তিন লাখ ৮১ হাজার, ঠাকুরগাঁওয়ে ৬৫৪ জনকে তিন লাখ ২৭ হাজার, রংপুরে এক হাজার ৫৬৪ জনকে সাত লাখ ৮২ হাজার টাকা এবং দিনাজপুরের ৪টি উপজেলায় (সদর, চিরিরবন্দর, পার্বতীপুর ও ফুলবাড়ী) ৬২৩ জনকে তিন লাখ ১১ হাজার ৫০০ টাকা সহায়তা দেয়া হয়েছে। তাদের প্রত্যেককে টাকা উত্তোলনের খরচ বাবদ অতিরিক্ত ১০ টাকা হারে প্রদান করা হয় মোট ৫০ হাজার ৪১০ টাকা।

এমএএস/পিআর