কালবৈশাখীর তাণ্ডবে মা-ছেলেসহ ৪ জনের মৃত্যু, বাড়িঘর বিধ্বস্ত

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি জয়পুরহাট
প্রকাশিত: ১১:৩১ এএম, ২৭ মে ২০২০

জয়পুরহাটে কালবৈশাখী ঝড়ের তাণ্ডবে একই পরিবারের তিনজনসহ চারজনের মৃত্যু হয়েছে। মঙ্গলবার (২৬ মে) মধ্যরাতে জেলার ক্ষেতলাল ও কালাই উপজেলায় এ ঘটনা ঘটে। এ ছাড়াও ঝড়ে জেলায় প্রায় দুই শতাধিক কাঁচা ও আধাপাকা বাড়িঘর ভেঙে গেছে। উপরে পড়েছে কয়েক হাজার গাছপালা। বোরো ধানের গাছ জমিতে শুয়ে পড়েছে।

joypurhat01

নিহতরা হলেন- জয়পুরহাটের ক্ষেতলাল পৌর এলাকার খলিশাগাড়ী গ্রামের ৪ নং ওয়ার্ডের জয়নাল মিয়ার স্ত্রী শিল্পী বেগম (২৭), তাদের দুই ছেলে নেওয়াজ মিয়া (৭)ও নিয়ামুল হোসেন (৩) এবং পার্শ্ববর্তী কালাই উপজেলার হারুঞ্জা গ্রামের মৃত ছালামত আলীর স্ত্রী মরিয়ম বেগম (৭০)।

এলাকাবাসীর বরাত দিয়ে জয়পুরহাটের পুলিশ সুপার সালাম কবির জানান, মঙ্গলবার রাতে ক্ষেতলাল পৌর এলাকার খলিশাগাড়ী গ্রামে প্রচণ্ড ঝড় শুরু হলে ঘরের কাছের একটি গাছ ঘরের চালার ওপরে পড়ে। এতে মা ও তার সন্তানরা ঘরের দেয়ালের নিচে চাপা পড়েন। ঝড় থেমে গেলে স্থানীয়রা মা ও সন্তানদের উদ্ধার করে ক্ষেতলাল উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যান। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় প্রথমে বড় সন্তান নেওয়াজ এবং তার কিছুক্ষণ পর মা শিল্পী ও ছোট সন্তান নিয়ামুলের মৃত্যু হয়। নিহতের স্বামী অন্য ঘরে থাকার কারণে তার কোনো ক্ষতি হয়নি।

joypurhat02

অপরদিকে কালাই উপজেলার হারুঞ্জা গ্রামে প্রবল ঝড়ে বড় একটি রেইনট্রি গাছ ভেঙে দরিদ্র বৃদ্ধা মরিয়ম বেগমের ঘরের চালার ওপরে পরে তার মৃত্যু হয়।

জয়পুরহাটের জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ জাকির হোসেন জানান, নিহতদের দাফনের জন্য ইতোমধ্যে ৫ হাজার টাকা করে দেয়া হয়েছে। এ ছাড়া আরও ১৫ হাজার টাকা করে দেয়া হবে। অন্যদিকে ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ নিরুপণ করে যত শিগগির সম্ভব ক্ষতিগ্রস্তদের অনুদান দেয়া হবে।

রাশেদুজ্জামান/আরএআর/পিআর

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]