৪ হাজার টাকা ঘুষ না পেয়ে ভিক্ষুককে ভাতার কার্ড দেননি মেম্বার

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি সাতক্ষীরা
প্রকাশিত: ১০:০৭ পিএম, ১৪ আগস্ট ২০২০
ইউপি সদস্য রেজাউল বিশ্বাস

সাতক্ষীরার কলারোয়ায় ভাতার কার্ড নেয়ার জন্য প্রতিবন্ধী ভিক্ষুকের কাছে চার হাজার টাকা ঘুষ দাবি করেছেন মেম্বার। টাকা দিতে না পারায় প্রতিবন্ধীর ভাতার কার্ড আটকে দিয়েছেন ওই ইউপি সদস্য। ঘটনাটি কলারোয়া উপজেলার জয়নগর ইউনিয়নের।

গত কয়েকদিন ধরে বিভিন্নজনের কাছে কার্ডটি পাওয়ার আশায় কান্নাকাটি করছেন জয়নগর ইউনিয়নের ক্ষেত্রপাড়া গ্রামের রওশন আরা বেগম (৬০)। তিনি ওই গ্রামের মৃত মোবারক গাজীর প্রতিবন্ধী ছেলে আকছেদ আলীর স্ত্রী।

রওশন আরা বেগম বলেন, স্বামী আকছেদ আলী জন্ম থেকেই মানসিক ভারসাম্যহীন। ভিক্ষা করে সংসার চলে আমাদের। ২ নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য রেজাউল বিশ্বাসের কাছে প্রতিবন্ধী ভাতার কার্ডের জন্য আবেদন করি। গত সপ্তাহে আমার স্বামীর কার্ড হয়েছে বলে জানান মেম্বার রেজাউল। কার্ড নিতে গেলে চার হাজার টাকা লাগবে বলে জানান তিনি। আমরা ভিক্ষুক হওয়ায় এত টাকা কোথায় পাব জানালে ভিক্ষা করে টাকা জোগাড় করে আনার কথা বলেন মেম্বার। পরে কার্ডটি আর দেননি তিনি।

এ বিষয়ে ইউপি সদস্য রেজাউল বিশ্বাস বলেন, আকছেদ প্রতিবন্ধী কি-না সেটি পরীক্ষার জন্য আমার কিছু টাকা খরচ হয়েছিল। আকছেদের স্ত্রীর কাছে আমার জেরের পাওনা ওই টাকা দাবি করেছিলাম। তারা সে টাকা এখনও দেয়নি। টাকা চাওয়ায় রাগ করে কার্ড নেয়নি তারা।

জয়নগর ইউপি চেয়ারম্যান ছামছুদ্দিন আল মাসুদ বাবু বলেন, রেজাউল মেম্বার ঘুষ ছাড়া কোনো কাজ করেন না। এর আগেও সে ক্ষেত্রপাড়া গ্রামের খলিল সানার কাছ থেকে বয়স্কভাতার কার্ড করে দেয়ার জন্য পাঁচ হাজার টাকা নিয়েছিলেন।

এ বিষয়ে কলারোয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মৌসুমি জেরিন কান্তা বলেন, তদন্তপূর্বক এ বিষয়ে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

আকরামুল ইসলাম/এএম/পিআর

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]