রাজবাড়ীতে কেজিতে পেঁয়াজের দাম বেড়েছে ২৫ টাকা

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি রাজবাড়ী
প্রকাশিত: ০৭:৩৮ পিএম, ১৬ সেপ্টেম্বর ২০২০

পেঁয়াজ উৎপাদনে সারাদেশের মধ্যে রাজবাড়ী তৃতীয়। দেশের প্রায় ১৪ শতাংশ পেঁয়াজ এই জেলায় উৎপাদন হয়। গত মৌসুমে রাজবাড়ীতে প্রায় সাড়ে তিন লাখ মেট্রিক টন পেঁয়াজ উৎপাদন হলেও ব্যবহার উপযোগী পেঁয়াজ রয়েছে দুই লাখ ৭৬ হাজার মেট্রিক টন। রাজবাড়ীর ১২ লাখ মানুষের পেঁয়াজের চাহিদা মাত্র ১৮ থেকে ২০ হাজার মেট্রিক টন। বাকি পেঁয়াজ ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে বিক্রি করেন কৃষক ও পাইকারি ব্যবসায়ীরা।

কিন্তু ভারত পেঁয়াজ রফতানি বন্ধের সঙ্গে সঙ্গে রাজবাড়ীতে বাড়তে শুরু করেছে পেঁয়াজের দাম। গত দুদিনের ব্যবধানে জেলায় কেজিতে পেঁয়াজের দাম বেড়েছে ২০ থেকে ২৫ টাকা। বুধবার (১৬ সেপ্টেম্বর) সকালে রাজবাড়ী শহরের বড় বাজার ঘুরে এমন চিত্র দেখা গেছে।

বাজারের খুচরা ব্যবসায়ী সাব্বির ট্রেডার্সের হালিম কাজী ও ভাই ভাই স্টোরের মো. আমজাদ শেখ জানান, ভারতীয় পেঁয়াজ আমদানি না হলে এবং বৃষ্টি হলে দাম বাড়বেই। তবে রাজবাড়ীর কৃষকদের ঘরে পেঁয়াজ আছে। সেসব পেঁয়াজ বাজারে আসলে কিছুটা দাম কমতে পারে। দুদিন আগেও ৫০-৫৫ টাকায় পেঁয়াজ বিক্রি করেছেন। আজ ৮০-৮৫ টাকায় বিক্রি করছেন। আমদানি কম থাকায় দাম বাড়ছে। এছাড়া ছাল পচা পেঁয়াজও ৩০ থেকে ৫০ টাকায় বিক্রি করছেন। আড়তে ভালো পেঁয়াজ ৩ হাজার থেকে ৩ হাজার ২০০ ও ছাল পচা পেঁয়াজ ১ হাজার ২০০ থেকে ১ হাজার ৭০০ টাকা মণ বেচাকেনা হচ্ছে।

ক্রেতা ইমরান হোসেন ও আলাউদ্দিন জানান, হঠাৎ পেঁয়াজের দাম বাড়ায় বিপাকে পড়েছেন তারা। যে পেঁয়াজ দুদিন আগে ৫০-৬০ টাকা কেজিতে কিনেছেন আজ তা কিনছেন ৮০-৮৫ টাকায়। পেঁয়াজের দাম নিয়ন্ত্রণে কঠোর নজরদারির দাবি জানান তারা।

রাজবাড়ী জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদফতরের উপপরিচালক গোপাল কৃষ্ণ দাস জানান, এ জেলার গত মৌসুমে তিন লাখ ৪৪ হাজার ৯০০ মেট্রিক টন পেঁয়াজ উৎপাদন হয়েছে। যার মধ্যে ব্যবহার (খাবার) উপযোগী দুই লাখ ৭৫ হাজার ৯০০ মেট্রিক টন। জেলায় পেঁয়াজের চাহিদা মাত্র ১৮ থেকে ২০ হাজার মেট্রিক টন।

তিনি আরও জানান, সারাদেশের মধ্যে পেঁয়াজ উৎপাদনে রাজবাড়ী জেলা তৃতীয়। কৃষকের ঘরে বা ব্যবসায়ীদের গুদামে এখনও পেঁয়াজ মজুত আছে। উপজেলা কৃষি অফিসকে কৃষকদের ঘরে কী পরিমাণ পেঁয়াজ মজুত আছে তা জরিপ করতে বলা হয়েছে।

রুবেলুর রহমান/আরএআর/এমএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]