ইলিশ ধরায় ৩৯ জেলের জেল-জরিমানা

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি ভোলা
প্রকাশিত: ০২:২৮ পিএম, ১৯ অক্টোবর ২০২০

 

নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে ভোলা সদর, বোরহনাউদ্দিন, তজুমদ্দিন ও মনপুরার মেঘনা-তেঁতুলিয়া নদীতে ইলিশ ধরায় ৩৯ জেলেকে আটক করা হয়েছে। এ সময় জেলেদের কাছ থেকে ২৫ কেজি ইলিশ ও ৪৪ হাজার মিটার কারেন্ট জাল জব্দ করা হয়।

মৎস্য বিভাগ, উপজেলা নির্বাহী অফিসার, সহকারী কমিশনার (ভূমি), নৌবাহিনী ও নৌপুলিশ সদস্যরা অভিযান চালিয়ে তাদের আটক করেন।

পরে ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও সহকারী কমিশনার (ভূমি) ২৬ জেলেকে ১ বছর করে কারাদণ্ড ও ১৩ জেলেকে ৫ হাজার টাকা করে জরিমানা করেন।

ভোলা জেলা মৎস্য কর্মকর্তা এসএম মাহারুল ইসলাম বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। তিনি জানান, রোববার গভীর রাত থেকে সোমবার দুপুর পর্যন্ত সরকারি নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে ইলিশ শিকার করায় ভোলা সদর উপজেলা থেকে ৬ জনকে আটক করা হয়। এসময় তাদের কাছ থেকে ১০ হাজার মিটার জাল ও ১৫ কেজি ইলিশ জব্দ করা হয়। পরে ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে ৪ জনকে ১ বছর করে কারাদণ্ড ও ২ জনকে ৫ হাজার টাকার করে মোট ১০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।

এছাড়াও বোরহাউদ্দিন উপজেলা থেকে ১ জেলেকে আটক করা হয়। এ সময় ১০ কেজি ইলিশ ও ১ হাজার মিটার কারেন্ট জাল জব্দ করা হয়। পরে ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে আটককৃত জেলেকে ১ বছরের কারাদণ্ড প্রদান করা হয়।

অপরদিকে তজুমদ্দিন উপজেলা থেকে ২৯ জেলেকে আটক করা হয়। এ সময় তাদের কাছ থেকে ৩০ হাজার মিটার কারেন্ট জাল জব্দ করা হয়। পরে ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে ১৮ জেলেকে ১ বছর করে করাদণ্ড ও ১১ জেলেকে ৫ হাজার করে মোট ৫৫ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।

অন্যদিকে মনপুরা উপজেলা থেকে ২ জেলেকে আটক করা হয়। এ সময় তাদের কাছ থেকে ১ হাজার মিটার জাল জব্দ করা হয়। ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে দুজনকে ১ বছর করে কারাদণ্ড দেয়া হয়।

উল্লেখ্য, ইলিশের প্রজনন মৌসুম হওয়ায় ১৪ অক্টোবর থেকে ৪ নভেম্বর পর্যন্ত ভোলার সাত উপজেলার নদীতে মাছ শিকারে নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে সরকার।

জুয়েল সাহা বিকাশ/এফএ/এমকেএইচ

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]