বেদম মারপিটের পর শিশুকে আটকে রাখলেন দুই মাদরাসা শিক্ষক

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি চুয়াডাঙ্গা
প্রকাশিত: ০২:০৫ পিএম, ২২ অক্টোবর ২০২০

চুয়াডাঙ্গার জীবননগর উপজেলার কাশিপুর দারুল উলুম কওমি মাদরাসার দ্বিতীয় শ্রেণির ছাত্র নাসিমকে বেধড়ক মারপিট করার অভিযোগ উঠেছে দুই শিক্ষকের বিরুদ্ধে। এ ঘটনায় অভিযুক্ত শিক্ষক মাজেদ হোসেন ও শাহিন হোসেনকে আটক করেছে পুলিশ।

বুধবার দুপুরে উপজেলার কাশিপুর দারুল উলুম কওমি মাদরাসায় এ ঘটনা ঘটে। বুধবার রাতেই আহত ছাত্রের বাবা আলাউদ্দিন বাদী হয়ে ওই দুই শিক্ষকের বিরুদ্ধে জীবননগর থানায় লিখিত অভিযোগ করেন।

ছাত্র নাসিম উপজেলার কেডিকে ইউনিয়নের কাশিপুর মাঝের পাড়ার আলাউদ্দিনের ছেলে।

নাসিম জানায়, বুধবার দুপুরে মাদরাসার শিক্ষক মাজেদ হোসেন তুচ্ছ ঘটনায় তাকে বেধড়ক মারপিট করে শ্রেণিকক্ষে আটকে রাখেন। পরবর্তীতে জোহরের নামাজের সময় তাকে নামাজ পড়ার জন্য ছেড়ে দিলে সে পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করে।

এ সময় শিক্ষক শাহিন হোসেন তাকে ধরে পুনরায় মারপিট করেন এবং আবারও আটকে রাখেন। পরে এলাকাবাসী এসে সন্ধ্যায় তাকে উদ্ধার করেন।

অভিযুক্ত দুই শিক্ষক বলেন, নাসিম মাদরাসায় প্রায়ই অনুপস্থিত থাকে। মাদরাসায় এলেও ক্লাস না করে পালিয়ে যায়। এজন্য তাকে একটু ভয় দেখিয়েছি। হয়তো বেত্রাঘাতের সময় হাতে বেকায়দা লেগে গেছে।

এ ব্যাপারে জীবননগর থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সাইফুল ইসলাম বলেন, বৃহস্পতিবার ভোরে অভিযুক্ত দুই শিক্ষককে আটক করা হয়েছে।

সালাউদ্দীন কাজল/এফএ/পিআর

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]