জীবনের কথা তুলে ধরে চাকরি পেলেন তৃতীয় লিঙ্গের দুজন

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি রাজশাহী
প্রকাশিত: ১০:০০ এএম, ২৮ ফেব্রুয়ারি ২০২১

রাজশাহী জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে তৃতীয় লিঙ্গের জনগোষ্ঠীর নেতৃত্ব ও ক্ষমতায়নের লক্ষে মানবাধিকার বিষয়ক সংগঠনের সঙ্গে একটি সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

শনিবার (২৭ ফেব্রুয়ারি) দুপুরে মানুষের জন্য ফাউন্ডেশনের সহযোগিতায় দিনের আলো হিজড়া সংঘ এ সভার আয়োজন করে।

সভায় তৃতীয় লিঙ্গের জনগোষ্ঠীর জীবনযাপনের করুণ চিত্র তুলে ধরা হয়। তাদের এমন গল্প নাড়া দেয় জেলা প্রশাসক আব্দুল জলিলকে। তাৎক্ষণিক দুজনের চাকরির ব্যবস্থা করে দেন তিনি।

তাদের একজনকে একজন কম্পিউটার অপারেটর ও আরেকজন অফিস সহায়ক (মাস্টার রোলে) হিসেবে কাজ দেয়া হয়। তারা ১ মার্চ থেকে চাকরিতে যোগদান করবেন বলে জানান জেলা প্রশাসক।

জেলা প্রশাসক আব্দুল জলিল বলেন, চাকরিপ্রাপ্তরা যতদিন পর্যন্ত সরকারিভাবে স্থায়ী নিয়োগ না পাবেন, ততদিন পর্যন্ত জেলা প্রশাসক কার্যালয় থেকে মাসিক একটি সম্মানী ভাতা দেয়া হবে। এছাড়া পুলিশ বিভাগ ও অন্যান্য প্রশাসনের চাকরিতে তৃতীয় লিঙ্গের জনগোষ্ঠীদের সম্পৃক্ত করার আহ্বান জানান তিনি।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে জেলা প্রশাসক বলেন, রাজশাহীতে প্রকৃত তৃতীয় লিঙ্গের সদস্যদের শনাক্ত করে পর্যায়ক্রমে যোগ্যতানুসারে কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা করা হবে। তৃতীয় লিঙ্গ নামধারীদের চাঁদাবাজি বন্ধে কার্যকর ব্যবস্থা নেয়া হবে।

এছাড়া হিজড়া গুরুদের তালিকা তৈরি করে তাদের সঙ্গে আলোচনা করা হবে। কারণ কেউই আইনের ঊর্ধ্বে নয়। কেউ বিশৃঙ্খলা করলে প্রচলিত আইনে তার বিচার হবে।

জেলা প্রশাসক আরও বলেন, রাজশাহীর তৃতীয় লিঙ্গের জনগণের বাসস্থানের জন্য কাশিয়াডাঙ্গায় এক একর জমি অধিগ্রহণ করে বাসস্থান ও টেনিং সেন্টার করার জন্য সরকারের কাছে প্রকল্প পেশ করা হয়েছে। এছাড়া উপজেলা পর্যায়ে সরকারের আশ্রয়ণ প্রকল্পে কেউ যেতে চাইলে প্রতিটি উপজেলায় দুজনকে ঘর দেয়া হবে।

জেলা প্রশাসক আব্দুল জলিল বলেন, কোনো জনগোষ্ঠীকে এগিয়ে নিতে হলে প্রথমে তার শিক্ষা ব্যবস্থা নিশ্চিত করা প্রয়োজন। সেজন্য এ জনগোষ্ঠীর সদস্যদের লেখাপড়ার জন্য আলাদা শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান স্থাপন করা প্রয়োজন বলে উল্লেখ করেন তিনি।

দিনের আলো হিজড়া সংঘের সভাপতি মোহনা মঈনের সভাপতিত্বে সভায় বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন- অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) শরিফুল হক, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (শিক্ষা ও আইসিটি) কামারুজ্জামান, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর) ইফতে খায়ের আলম, সহকারী কমিশনার সানিয়া বিনতে আফজাল, তানিয়া আক্তার লুবনা ও মুমতাহিনা কবীর, বরেন্দ্র উন্নয়ন প্রচেষ্টার নির্বাহী পরিচালক ফয়েজুল্লাহ চৌধুরী প্রমুখ।

এসএমএম/এমএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]