বিকাশ প্রতারণায় পুরো মাসের বেতনটাই খোয়ালেন নারী শ্রমিক

উপজেলা প্রতিনিধি উপজেলা প্রতিনিধি কালীগঞ্জ (গাজীপুর)
প্রকাশিত: ০৯:৫৪ পিএম, ০৮ এপ্রিল ২০২১
প্রতীকী ছবি

রাবেয়া আক্তার (২৭)। থাকেন গাজীপুরের কালীগঞ্জ পৌর এলাকার ভাদার্ত্তী (দক্ষিণ পাড়া) গ্রামে। স্বামী ছেড়ে গেছেন অনেক আগেই। বাবাও মারা গেছেন। তাই নিজের জমিজমা বলতে কিছুই নেই। ভাড়া থাকেন একই গ্রামের মো. হাবীবুল্লাহ সরকারের বাড়িতে। স্থানীয় একটি পোশাক কারখানায় কাজ করেন।

বিকাশের মাধ্যমে প্রতিমাসের ৭ তারিখে পেয়ে যান পারিশ্রমিক। এ মাসেও বিকাশের মাধ্যমে পেয়েছেন গত মাসের বেতন। কিন্তু বিকাশ প্রতারকদের কারণে সেই টাকা আর ঘরে নিতে পারেননি। প্রতারকদের পাল্লায় পড়ে খুইয়েছেন পুরো মাসের বেতন।

রাবেয়া জানান, মঙ্গলবার (৬ এপ্রিল) সকাল ১০টার দিকে তার মোবাইলের বিকাশ অ্যাকাউন্টে বেতনের ১২ হাজার ৯০৭ টাকা আসে। এর কিছুক্ষণের মধ্যেই দুটি নম্বর থেকে কল আসে। প্রতারকরা রাবেয়াকে জানান, পৌরসভায় তার নামে করোনা ভাতার জন্য চার হাজার ২০০ টাকা এসেছে। আর সেই টাকা পেতে হলে মোবাইলের ক্যালকুলেটর অ্যাপ ওপেন করে তাতে ৪২০০-এর সঙ্গে বিকাশের পিন নম্বর যোগ করতে হবে। যদি তিনি এ কাজে সফল হন তাহলে তার অ্যাকাউন্টে করোনা ভাতার টাকা চলে যাবে।

কথামতো কাজ করে দেখেন তার বেতনের টাকাসহ ৩০ সেকেন্ডের ব্যবধানে ১৫ হাজার টাকা নিয়ে গেছে প্রতারকরা। পরবর্তীতে ওই দুই নম্বরে বারবার ফোন করে নম্বরগুলো বন্ধ পাওয়া যায়। এ ঘটনায় বৃহস্পতিবার (৮ এপ্রিল) সন্ধ্যায় নিজে বাদী হয়ে থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেছেন।

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে কালীগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) একেএম মিজানুল হক জানান, সারাদেশ করোনা মহামারিতে লকডাউনে চলছে। এই অবস্থায় একজন পোশাক শ্রমিকের কাছ থেকে বিকাশের মাধ্যমে প্রতারণার বিষয়টি দুঃখজনক। অভিযোগটি হাতে পেয়েছেন। অবশ্যই তদন্তপূর্বক ব্যবস্থা নেবেন।

আব্দুর রহমান আরমান/এসআর/জেআইএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]