বাখরাবাদ গ্যাস ডিস্ট্রিবিউশন অফিসে হামলার উস্কানিদাতা গ্রেফতার

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি ব্রাহ্মণবাড়িয়া
প্রকাশিত: ০৯:১৭ পিএম, ১০ এপ্রিল ২০২১

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় হেফাজতে ইসলামের তাণ্ডবের সময় বাখরাবাদ গ্যাস ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানির অফিসে হামলার মূল উস্কানিদাতাকে গ্রেফতার করেছে গোয়েন্দা পুলিশ।

শনিবার (১০ এপ্রিল) সন্ধ্যায় সদর উপজেলার বুধল ইউনিয়নের চান্দিরা গ্রাম থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়। গ্রেফতার মো. শামীম ওই এলাকার ফুল মিয়ার ছেলে। ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা পুলিশের গোয়েন্দা শাখার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা লোকমান হোসেন বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

জেলা গোয়েন্দা শাখা সূত্রে জানা গেছে, ২৮ মার্চ হেফাজতে ইসলামের ডাকা হরতালে ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় তাণ্ডব চালানো হয়। এ সময় শামীম নামের ওই যুবক তার ফেসবুকে সদর উপজেলার ঘাটুরার বাখরাবাদ গ্যাস ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানির অফিসে হামলার কথা বলে অনুরোধ জানান। এরপর পরই বাখরাবাদ গ্যাস ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানির অফিসে ব্যাপক হামলা চালান হেফাজতের নেতাকর্মীরা।

এ সময় গ্যাস ডিস্ট্রিবিউশন অফিসটিতে পেট্রোল বোমা নিক্ষেপ করা হয়। এতে ওই অফিসে থাকা ১০-১২টি গাড়ি পুড়ে ছাই হয়ে যায়। ফলে ওইদিন রাত থেকে দুপুর পর্যন্ত ব্রাহ্মণবাড়িয়া শহরের গ্যাস সংযোগ বন্ধ ছিল এবং সাধারণ মানুষ বাড়িঘরে রান্নার কাজ নিয়ে পড়েন দুর্ভোগে। এই ঘটনায় গ্যাস ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানি মামলা দায়ের করে।

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় তাণ্ডবের ঘটনায় করা ৪৮টি মামলার মধ্যে সদর মডেল থানায় ৪৩টি, আশুগঞ্জ থানায় তিনটি ও সরাইল থানায় দুটি মামলা রুজু করা হয়েছে। এসব মামলায় এজাহারনামীয় ২৮৮ জনসহ অজ্ঞাতনামা ৩৫ হাজার লোককে আসামি করা হয়েছে। গত ২৬ মার্চের পর থেকে গ্রেফতার করা হয়েছে ৬২ জন আসামীকে।

এদিকে, ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় তাণ্ডবের ঘটনায় আসামি ধরতে জেলা শহরসহ সদর উপজেলার সুহিলপুর ও বুধল ইউনিয়নে ব্যাপক অভিযান চালাচ্ছে সাদা পোশাকে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যরা। গ্রামের অধিকাংশ পুরুষ আতঙ্কে ঘর ছাড়া রয়েছেন।

এ বিষয়ে বুধল ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আব্দুল হক বলেন, ‘গ্রামে সাদা পোশাকে অভিযান চালাচ্ছে পুলিশ। এই পর্যন্ত চারজনকে বুধল থেকে গ্রেফতার করা হয়েছে। অনেক পুরুষ আতঙ্ক বাড়িতে রাত্রিযাপন করছেন না।’

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার পুলিশ সুপার আনিসুর রহমান বলেন, ‘পুলিশ আসামিদের ভিডিও ফুটেজ ও ছবি দেখে গ্রেফতার করছে। এছাড়াও যাদের বিরুদ্ধে সুনির্দিষ্ট অভিযোগ আছে তাদের ধরতে অভিযান চালানো হচ্ছে। অপরাধী ছাড়া অন্যদের ভয় পাওয়ার কারণ নেই।’

আবুল হাসনাত মো. রাফি/এসজে/এমকেএইচ

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]