দেড় বছর পর বিচারক পেল ফেনীর নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি ফেনী
প্রকাশিত: ০৫:১৫ পিএম, ১৩ এপ্রিল ২০২১

দীর্ঘ ১৮ মাস শূন্য থাকার পর ফেনীর নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালে বিচারক নিয়োগ দেয়া হয়েছে। সম্প্রতি এক আদেশবলে ফেনীর নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালে মোহাম্মদ ওসমান হায়দার নামের এক বিচারক যোগদান করেছেন। এর আগে তিনি উচ্চ আদালতের অতিরিক্ত রেজিস্ট্রার (প্রশাসন) দায়িত্বে ছিলেন।

ফেনীর আদালত সূত্র জানায়, ২০১৯ সালের অক্টোবর মাসে আলোচিত নুসরাত হত্যা মামলার রায় ঘোষণার পর ফেনীর নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের বিচারক মামুনুর রশিদ ঠাকুরগাঁও জেলা জজ হিসেবে পদোন্নতি পেয়ে বদলি হন। সেই থেকে এই ট্রাইব্যুনালে আর কোনো বিচারককে পদায়ন করা হয়নি। দীর্ঘ এ সময়ে জেলা ও দায়রা জজ ড. বেগম জেবুননেসা এ আদালতের জরুরি বিষয়গুলোতে অতিরিক্ত দায়িত্ব পালন করেন। নিজ দায়িত্বের অতিরিক্ত চাপ থাকায় নারী ও শিশু আদালতের মামলাগুলো নিয়মিত দেখা তার পক্ষে সম্ভব হচ্ছিল না। এতে করে ওই আদালতে মামলার জট পড়ে যায়।

বর্তমানে ফেনীর নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালে এক হাজার ২৮৬টি নারী নির্যাতন, ২৩১টি শিশু নির্যাতন ও ৫০২টি কমপ্লেইন (অভিযোগ) মামলা রয়েছে।

jagonews24

ফেনী জেলা আইনজীবী সমিতির সভাপতি নুর হোসেন জানান, দীর্ঘদিন ধরে ফেনীর জনগুরুত্বপূর্ণ এ আদালতে বিচারক না থাকায় মামলার জট বাঁধে। এতে করে বিচারপ্রার্থীদের মাঝে হতাশা ও ক্ষোভ সৃষ্টি হয়। কিছু কিছু বিচারপ্রার্থী ৪ থেকে ৬ বছর পর্যন্ত সময়েও রায় না পেয়ে আসামিদের সঙ্গে আপোস মীমাংসায় বাধ্য হয়েছেন। আবার কোনো কোনো বিচারপ্রার্থী হতাশ হয়ে এখন আর মামলার খোঁজই নেন না। এখন নতুন বিচারক যোগ দিয়েছেন। আশা করি, তিনি আন্তরিক হলে ক্রমান্বয়ে পুরাতন মামলাগুলোর রায় হয়ে যাবে। তাহলে বিচারপ্রার্থীদের মাঝেও হতাশা কমে যাবে।

ফেনী জেলা জজ আদালতের সরকারি কৌঁসুলি (পিপি) হাফেজ আহাম্মদ জানান, ফেনীর নারী ও শিশু দমন ট্রাইব্যুনালে বিচারক যোগদান করেছেন। কিন্তুু এখন পর্যন্ত তিনি করোনা পরিস্থিতিতে আদালতের বিচারকাজ শুরু করতে পারেননি। নিয়মিত আদালত শুরু হলে ক্রমান্বয়ে মামলার জট কমে আসবে বলে মনে করেন তিনি।

মোহাম্মদ ওসমান হায়দার নোয়াখালীর হাতিয়া ও মৌলভীবাজার জেলায় সিনিয়র সহকারী জজ, নোয়াখালীর অতিরিক্ত চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট, লক্ষ্মীপুর যুগ্ম-জেলা ও দায়রা জজ, রাজবাড়ীর অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ, ঢাকা জেলার অতিরিক্ত মহানগর দায়রা জজ ও আইন মন্ত্রণালয়ের উপ-সচিব হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। তিনি ২৪তম বিসিএসের মাধ্যমে জুডিশিয়াল সার্ভিসে কর্মজীবন শুরু করেন।

এসআর/এমকেএইচ

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]