ব্যাংকের ভুলে হয়রানি

উপজেলা প্রতিনিধি উপজেলা প্রতিনিধি মির্জাপুর (টাঙ্গাইল)
প্রকাশিত: ১১:০৫ এএম, ১৯ এপ্রিল ২০২১

টাঙ্গাইলের মির্জাপুরে কৃষি ব্যাংকের ভুলে বাংলাদেশ জাতীয় পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় ফেডারেশনের সভাপতি মির্জাপুর উপজেলা কেন্দ্রীয় সমবায় সমিতি লিমিটেড’র চেয়ারম্যান প্রার্থী খন্দকার বিপ্লব মাহমুদ উজ্জল হয়রানির শিকার হয়েছেন। গত ১৫ এপ্রিল ভুলবতশ তাকে ঋণ খেলাপী উল্লেখ করে নির্বাচন পরিচালনা কমিটি বরাবর একটি পত্র দেয় বাংলাদেশ কষি ব্যাংক মির্জাপুর উপজেলা সদর শাখা। পরে বিষয়টিতে ভুল স্বীকার করে রোববার (১৮ এপ্রিল) নির্বাচন পরিচালনা কমিটির কাছে প্রত্যয়নপত্রও দেয়।

কিন্তু ১৫ এপ্রিলের ঋণ খেলাপির পত্র পেয়ে নির্বাচন পরিচালনা কমিটি মির্জাপুর উপজেলা কেন্দ্রীয় সমবায় সমিতি লিমিটেডের চেয়ারম্যান প্রার্থী খন্দকার বিপ্লব মাহমুদ উজ্জলের মনোনয়নপত্র অবৈধ ঘোষণা করা হয়। খন্দকার বিপ্লব মাহমুদ উজ্জল রোববার কৃষি ব্যাংকে গিয়ে বিষয়টি নিয়ে কথা বলেন।

ব্যাংক কর্তৃপক্ষ বিষয়টি যাচাই-বাছাই করে দেখতে পায় বিপ্লব ঋণ খেলাপি নন। এটি ভুলবশত হয়েছে বলে ব্যাংক কর্তৃপক্ষ স্বীকার করে। পরে খন্দকার বিপ্লব মাহমুদ উজ্জলকে কৃষি ব্যাংক মির্জাপুর শাখার একজন ভিআইপি গ্রাহক উল্লেখ করে নির্বাচন কমিটি বরাবর ব্যাংক কর্তৃপক্ষ একটি প্রত্যায়নপত্র পাঠায়।

এ ঘটনায় চেয়ারম্যান প্রার্থী খন্দকার বিপ্লব মাহমুদ উজ্জল নানাভাবে হয়রানির শিকার হন বলে সাংবাদিকদের জানান।

খন্দকার বিপ্লব মাহমুদ উজ্জল বলেন, ব্যাংকের দেয়া প্রত্যয়নপত্র দিয়ে অনলাইনে আপিল করা হয়েছে। প্রার্থিতা ফিরে পেলে নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করবেন বলে তিনি আশা প্রকাশ করেন।

মির্জাপুর উপজেলা কেন্দ্রীয় সমবায় সমিতি লিমিডেট এর নির্বাচন পরিচালনা কমিটির সদস্য মিজু আহম্মেদের সঙ্গে কথা হলে তিনি বলেন, প্রার্থিতা ফিরে পেতে সমবায়ের যুগ্ম নিবন্ধকের কাছে আপিল করতে হবে। সেখানে শুনানি শেষে বৈধ/অবৈধ ঘোষণা পাওয়ার পর নির্বাচন পরিচালনা কমিটি পরবর্তী সিদ্ধান্ত হবে বলে তিনি জানান।

উল্লেখ্য, আগামী ৮ মে মির্জাপুর উপজেলা কেন্দ্রীয় সমবায় সমিতি লিমিটেডের ভোট অনুষ্ঠিত হবে।

এস এম এরশাদ/এফএ/জেআইএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]