টিসিবির পণ্য বিক্রি করায় জরিমানা

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক বগুড়া
প্রকাশিত: ০৯:৪০ পিএম, ০৬ মে ২০২১

কালোবাজারে বিক্রির সময় বগুড়ার শেরপুরে ট্রাকভর্তি টিসিবির পণ্যসহ মো. উজ্জল হোসেন নামে ডিলারের এক ব্যবস্থাপককে (ম্যানেজার) আটক করেছে স্থানীয় জনতা। পরে ভ্রাম্যমাণ আদালত বসিয়ে তাকে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। একইসঙ্গে টিসিবির ডিলার আব্দুল কাইয়ুমের লাইসেন্স বাতিলের সুপারিশ করা হয়।

বৃহস্পতিবার (৬ মে) দুপুরে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করেন উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) সাবরিনা শারমিন।

ভ্রাম্যমাণ আদালত সূত্রে জানা যায়, রমজানের শুরু থেকেই বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের আওতাধীন সরকারি বিপণন সংস্থা ট্রেডিং করপোরেশন অব বাংলাদেশ (টিসিবি) তাদের নিয়োগ করা ডিলারের মাধ্যমে ন্যায্যমূল্যে সাধারণ মানুষের মধ্যে পণ্য বিক্রি করা হচ্ছে। এরই ধারাবাহিকতায় টিসিবির ডিলার আব্দুল কাইয়ুম ন্যায্যমূল্যে বিক্রির জন্য বগুড়াস্থ আঞ্চলিক কার্যালয় থেকে টিসিবির মালামাল ঠিকই উত্তোলন করেন।

সরকারি এসব পণ্য রায়গঞ্জ উপজেলায় সাধারণ মানুষের মাঝে ন্যায্যমূল্যে বিক্রি করার কথা। কিন্তু ওই ডিলারের ব্যবস্থাপক উজ্জল হোসেন তা না করে টিসিবির বগুড়াস্থ ডিপো থেকে উত্তোলন করা মালামাল ট্রাকে ভরে শেরপুর উপজেলার গাড়ীদহ দশমাইল নামক স্থানে এনে কালোবাজারে বিক্রি করে দেন। তাই অন্যত্র পাচারের জন্য ওই ট্রাক থেকে মালামালগুলো নামানো হচ্ছিল।

এ সময় স্থানীয় জনতা ন্যায্যমূল্যে বিক্রির টিসিবির পণ্যসহ ডিলারের ব্যবস্থাপক উজ্জলকে আটক করে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও থানা পুলিশকে জানান। পরে ঘটনাস্থলে ভ্রাম্যমাণ আদালত উপস্থিত হলে আটক ব্যক্তি ও টিসিবির মালামাল সোপর্দ করা হয়।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে ভ্রাম্যমাণ আদালতের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) সাবরিনা শারমিন বলেন, ‘আটক ব্যক্তিকে ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ আইন-২০০৯ সালের ৪৫ ধারায় ৫০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। পাশাপাশি ওই ডিলারের লাইসেন্স বাতিলের সুপারিশ করেছি। এছাড়া উদ্ধার হওয়া ৫৯৭ কেজি চিনি, ৩৯০ কেজি ডাল ও ১৩৬০ লিটার সয়াবিন তেল জব্দ করে বগুড়ায় টিসিবির কার্যালয়ে পাঠিয়ে দেয়া হয়েছে।’

এসজে/জেআইএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]