শিবচরে দুর্ঘটনার সময় নেশাগ্রস্ত ছিলেন স্পিডবোটচালক

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি মাদারীপুর
প্রকাশিত: ০৪:০৬ এএম, ০৭ মে ২০২১ | আপডেট: ০৪:০৯ এএম, ০৭ মে ২০২১

মাদারীপুরের শিবচরে কাঁঠালবাড়ি পুরাতন ঘাটে বাল্কহেডের সঙ্গ দুর্ঘটনার সময় স্পিডবোটচালক মো. শাহ আলম (৩১) গাঁজা ও ইয়াবা সেবনের কারণে নেশাগ্রস্ত ছিলেন। চালক শিবচর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন থাকা অবস্থায় ডোপ টেস্টের নমুনায় এ তথ্য নিশ্চিত হয়েছে স্বাস্থ্য বিভাগ। বর্তমানে তিনি ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

বৃহস্পতিবার (৬ মে) সন্ধ্যায় শিবচর উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ কর্মকর্তা ডা. শশাঙ্ক চন্দ্র ঘোষ এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

তিনি বলেন, ‘দুর্ঘটনার পর জেলা প্রশাসক ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা চালক মো. শাহ আলমের ডোপ টেস্ট করাতে বলেন। পরে আমরা ঢাকা থেকে কিট এনে ডোপ টেস্ট করি। এতে তার পজিটিভ এসেছে। নমুনায় গাঁজা ও ইয়াবার অস্তিত্ব মিলেছে। অর্থাৎ স্পিডবোটটি চালানোর সময় সে মাদকাসক্ত ছিল।

উল্লেখ্য, সোমবার ভোরে ঘাটে নোঙর করে রাখা বালুবোঝাই বাল্কহেডের সঙ্গ শিমুলিয়া থেকে আসা একটি দ্রুতগতির স্পিডবোটের ধাক্কা লাগলে ঘটনাস্থলেই ২৬ জনের মৃত্যু হয়। এ ঘটনায় জেলা প্রশাসন ও নৌ পরিবহন মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে পৃথক দুটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে।

বুধবার জেলা প্রশাসনের ছয় সদস্যের তদন্ত কমিটি ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে। এর আগে মঙ্গলবার দুপুরে নৌ পরিবহন মন্ত্রণালয়ের তদন্ত দল ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে।

শিবচর উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) আসাদুজ্জামান বলেন, ‘দুর্ঘটনার পর জীবিত উদ্ধার হওয়া দু-তিনজন যাত্রীর সঙ্গে আমরা কথা বলেছিলাম। তাদের কথায়ও বোঝা গেছে, স্পিডবোটের চালক শাহ আলম তখন নেশাগ্রস্ত ছিল।’

এ কে এম নাসিরুল হক/এসজে

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]