অপহরণের ১০ ঘণ্টা পর শিশুকে অক্ষত অবস্থায় উদ্ধার

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি নোয়াখালী
প্রকাশিত: ১০:৩৪ এএম, ১৮ মে ২০২১

নোয়াখালীর সোনাইমুড়ী থেকে অপহৃত আড়াই বছরের শিশু নাজমুল হাসান মেজবাহকে ১০ ঘণ্টার মধ্যে অক্ষত অবস্থায় উদ্ধার ও অপহরণকারী দলের দুই সদস্যকে আটক করেতে সক্ষম হয়েছে পুলিশ।

সোমবার (১৭ মে) দুপুর সাড়ে ১২টায় নিজের কার্যালয়ের সভাকক্ষে এক সংবাদ সম্মেলনে নোয়াখালী পুলিশ সুপার (এসপি) মো. আলমগীর হোসেন এসব তথ্য জানান।

শিশু মেসবাহ সোনাইমুড়ী থানার উত্তর অম্বরনগর গ্রামের নুরুল আমিনের ছেলে।

jagonews24

পুলিশ সুপার বলেন, রোববার (১৬ মে) সকাল সাড়ে ৯টার দিকে আত্মীয়তার সুবাদে শিশু মেজবাহকে দোকানে নেয়ার কথা বলে অপহরণ করেন ওই ইউনিয়নের ২ নম্বর ওয়ার্ডের চৌকিদার বাড়ির জহির চৌধুরীর ছেলে মো. রাসেল (২৩)। পরে শিশুটির মায়ের মোবাইলে ফোন করে দুই লাখ টাকা মুক্তিপণ দাবি করা হয়।

বিষয়টি শিশুটির মা নাজমা আক্তার রোববার বিকেলে সোনাইমুড়ী থানাকে অবহিত করলে থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মো. জিসান আহমেদের নেতৃত্বে পুলিশ সাঁড়াশি অভিযানে নামে। প্রযুক্তির মাধ্যমে অপহরণকারী রাসেলের অবস্থান পার্শ্ববর্তী লক্ষ্মীপুর জেলায় শনাক্ত হয়। পরে ওই জেলার সদর থানার সহযোগিতায় সোমবার ভোরে লক্ষ্মীপুরের বাঞ্চানগর বেড়িবাঁধ এলাকায় অভিযান চালানো হয়।

এসময় স্থানীয় মাসুদ আদনানের (২৪) বাড়ির ঝুপড়ি ঘর থেকে অপহৃত শিশু নাজমুল হাসান মেজবাহকে উদ্ধার এবং অপহরণকারী মো. রাসেল ও বাঞ্চানগরের মৃত আবুল কাশেমের ছেলে মাসুদ আদনানকে গ্রেফতার করে পুলিশ।

jagonews24

এ ঘটনায় শিশুটির মা নাজমা আক্তার বাদী হয়ে সোনাইমুড়ী থানায় সোমবার সকালে আসামিদের বিরুদ্ধে একটি অপহরণ মামলা দায়ের করেন। মামলা নম্বর ২২।

সোনাইমুড়ী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. গিয়াস উদ্দিন জাগো নিউজকে বলেন, শিশুটির মা নাজমা আক্তারের অভিযোগ পেয়ে ভিকটিমকে অক্ষত অবস্থায় উদ্ধার করতে সক্ষম হয়েছে পুলিশ। এ ঘটনায় দুজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

শিশুর বাবা নুরুল আমিন কান্নাজড়িত কণ্ঠে জাগো নিউজকে বলেন, ছেলেকে সুস্থ অবস্থায় কোলে ফিরে পেয়ে আমরা খুবই খুশি। এজন্য তিনি নোয়াখালীর পুলিশ সুপার মো. আলমগীর হোসেনসহ সংশ্লিষ্ট সবার প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন ও ধন্যবাদ জানান।

এসআর/এএসএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]