স্ত্রীকে হত্যা করে ঢাকায় আত্মগোপন, ৭ মাস পর গ্রেফতার স্বামী

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক বগুড়া
প্রকাশিত: ০৯:২৪ পিএম, ১৫ জুন ২০২১

বগুড়ার আদমদীঘির সান্তাহারে ফাইমা বেগম নামের এক গৃহবধূকে শ্বাসরোধ করে হত্যার অভিযোগে সাতমাস ধরে আত্মগোপনে থাকা স্বামী সাইফুল ইসলামকে (৩৮) গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

গ্রেফতার সাইফুল উপজেলার সান্তাহার ইউনিয়নের সান্দিড়া ব্যপারীপাড়ার আরমান আলীর ছেলে। গ্রেফতারের পর মঙ্গলবার (১৫ জুন) সন্ধ্যায় তাকে আদমদীঘি থানায় আনা হয়।

এরআগে সোমবার (১৪ জুন) রাতে ঢাকার নিউ গুলশান এলকায় একটি হোটেল থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়।

পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, টাকার জন্য ঝগড়ার একপর্যায়ে গৃহবধূ ফাইমা বেগমের গলায় কাপড় পেঁচিয়ে শ্বাসরোধে হত্যা করেন স্বামী সাইফুল ইসলাম। হত্যার পর কম্বল দিয়ে ঢেকে রেখে ঘরের দরজায় তালা দিয়ে পালিয়ে যান। কয়েকদিন পর প্রতিবেশীরা ঘরের দুর্গন্ধ পেয়ে নিহতের বড়বোন রোজিনা বেগমকে বিষয়টি জানান। পরে ঘরের তালা ভেঙে ফাইমার মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। এরপর থেকে সাইফুল আত্মগোপনে থাকেন। গোপন সংবাদের ভিত্তিতে সোমবার রাতে ঢাকার গুলশান এলাকার নিউ গুলশান প্লাজায় একটি হোটেল থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়।

সান্তাহার পুলিশ ফাঁড়ির উপপরিদর্শক (এসআই) আব্দুল ওয়াদুদ বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, দুই বছর আগে সান্তাহার ইয়ার্ড কলোনির মৃত আইনাল হকের মেয়ে ফাইমার সঙ্গে সান্দিড়া ব্যপারীপাড়ার আরমান আলীর ছেলে সাইফুল ইসলামের বিয়ে হয়। ফাইমা সাইফুলের দ্বিতীয় স্ত্রী ও ফাইমারও দ্বিতীয় স্বামী সাইফুল।

‘বিয়ের বছর যেতে না যেতে তাদের মনোমালিন্যের কারণে বিবাহ বিচ্ছেদ হয়। সাইফুল তাকে দেনমোহর ও ধারের পাওনা টাকা বুঝে দেন। এরপর তাদের মধ্যে ফের সম্পর্ক স্থাপন হলে আবারো ফাইমাকে বিয়ে করেন। সাইফুল ওই টাকা নেয়ার জন্য ফাইমাকে চাপ দেয়। তারপর থেকে দুজনের মধ্যে ঝগড়া লেগেই থাকত। একপর্যায়ে ফাইমাকে হত্যা করে সাইফুল পালিয়ে যান। আত্মগোপনে থাকা সাইফুলকে সাতমাস পর ঢাকা থেকে গ্রেফতার করা হলো।’

এসআর/এমএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]