৩ দিনের রিমান্ড আদেশ শুনে আদালতে জ্ঞান হারালেন হেফাজত নেতা

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি ব্রাহ্মণবাড়িয়া
প্রকাশিত: ০৯:০৮ পিএম, ১৬ জুন ২০২১ | আপডেট: ০৯:১৪ পিএম, ১৬ জুন ২০২১

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় হেফাজতে ইসলামের সহিংসতার ঘটনায় গ্রেফতার দলটির জেলা কমিটির সহ-দফতর সম্পাদক ও জামিয়া ইউনুছির মাদরাসার সিনিয়র শিক্ষক আবদুল হকের তিন দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন আদালত।

বুধবার (১৬ জুন) বিকেলে জেলা জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আল আমিন তার তিন দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন। রিমান্ড মঞ্জুরের কথা শুনে আদালতে অচেতন হয়ে পড়েন মুফতি আবদুল হক।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এমরানুল হক জানান, গত ২৬-২৮ মার্চ পর্যন্ত ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় হেফাজতে ইসলামের সহিংসতার ঘটনায় গত ১০ জুন মুফতি আবদুল হককে গ্রেফতার করা হয়। গ্রেফতারের পর তাকে ব্যাপক জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আদালতে ১০ দিনের রিমান্ড আবেদন করা হয়। বুধবার বিকেলে আদালত তিন দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন। রিমান্ড শুনানিকালে আব্দুল হক উপস্থিত ছিলেন। শুনানি শেষে আদালতের এজলাস থেকে বের হয়ে বাইরে টেবিলের ওপরে আসরের নামাজ আদায় করেন। নামাজে তিনি অসুস্থ হয়ে পড়েন। পরে তাকে চিকিৎসার জন্য জেলা সদর হাসপাতালে নিয়ে আসা হয়। চিকিৎসক জানিয়েছেন, তিনি শারীরিকভাবে এখন ভালো আছেন।

২৫০ শয্যাবিশিষ্ট ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেনারেল হাসপাতালের জরুরি বিভাগের চিকিৎসক নাজমুল হক বলেন, ‌‘উনার প্রেসার-ডায়াবেটিস ভালো আছে। সেই ক্ষেত্রে অপশন থাকতে পারে দুইটি। প্রথম, রোগীর বর্তমান পারিপার্শ্বিক পরিস্থিতির কারণে চিন্তায় এমন হতে পারে, দ্বিতীয়ত, ব্রেইন স্ট্রোকের কারণে এমনটা হতে পারে।’

তিনি আরও বলেন, ‘প্রাথমিক অবস্থায় চেক করার পর যতটুকু ধারণা করা হচ্ছে, তিনি ব্রেইন স্ট্রোক করেননি। উনার চেতন আছে। আমরা তাকে মেডিসিন বিভাগে ভর্তি দিয়েছি। বাকিটা সিনিয়র চিকিৎসকরা দেখবেন।’

আবুল হাসনাত মো. রাফি/এসআর/জিকেএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]