পদ্মায় নিখোঁজ চীনা প্রকৌশলীর সন্ধানে পুরস্কার ঘোষণা

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি মুন্সিগঞ্জ
প্রকাশিত: ০৭:৩৮ পিএম, ২৫ জুন ২০২১ | আপডেট: ০৭:৪৩ পিএম, ২৫ জুন ২০২১

নিখোঁজের তিন দিনেও পদ্মা সেতু প্রকল্পের চীনা প্রকৌশলী জো জিয়াংয়ের (৩৫) সন্ধান মেলেনি। শুক্রবার (২৫ জুন) সন্ধ্যা ৭টা পর্যন্ত তার খোঁজ পাওয়া যায়নি বলে জানিয়েছেন মাওয়া নৌপুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ মো. সিরাজুল কবীর।

এদিকে যে কোনো অবস্থায় তার সন্ধান দিতে পারলে সন্ধানদাতাকে দুই লাখ টাকা পুরস্কারের ঘোষণা দিয়েছে জিয়াংয়ের প্রতিষ্ঠান চায়না মেজর ব্রিজ ইঞ্জিনিয়ারিং কোম্পানি (এমবিইসি)। এ বিষয়ে পদ্মা সেতুর আশপাশের এলাকাগুলোতে লিফলেট বিতরণ করা হয়েছে বলেও প্রকল্পের নির্ভরযোগ্য সূত্র নিশ্চিত করেছে।

মাওয়া নৌ-পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সিরাজুল কবীর জানান, পদ্মা সেতু প্রকল্প এলাকা থেকে চাঁদপুরের মেঘনা নদী পর্যন্ত বিস্তীর্ণ এলাকাজুড়ে খোঁজাখুঁজি করা হয়েছে। তবে কোথাও ওই প্রকৌশলীকে পাওয়া যায়নি। নিখোঁজ হওয়ার খবর পাওয়ার পর থেকেই খোঁজাখুঁজি চলছে।

তিনি আরও বলেন, জীবিত অথবা মৃত অবস্থায় নিখোঁজ প্রকৌশলীর সন্ধান দিতে পারলে দুই লাখ টাকা পুরস্কারের ঘোষণা করেছে এমবিইসি-৪। নদীর পার্শ্ববর্তী সব থানাকে এ বিষয়ে তথ্য পাঠানো হয়েছে।

পদ্মা সেতুর নির্বাহী প্রকৌশলী (মূল সেতু) দেওয়ান মো. আব্দুল কাদের জাগো নিউজকে জানান, নিখোঁজ প্রকৌশলী এমবিইসি কোম্পানিতে কর্মরত ছিলেন। নদীতে বার্জে (বড় আকৃতির ভাসমান জলযান) থাকতেন। সেখান থেকে যেহেতু তাকে এখনো পাওয়ায় যায়নি তাই নিশ্চিত করে বলা যাচ্ছে না কী হয়েছে। তার মৃতদেহ না পাওয়া পর্যন্ত তিনি মারা গেছেন কি-না তাও নিশ্চিত করে বলা যাচ্ছে না। নদীতে পড়ে নিহত অথবা অন্যত্র যেতে পারেন, এই দুটি ব্যাপারেই তার প্রতিষ্ঠান এমবিইসি সংশ্লিষ্টরা আশঙ্কা করছেন।

এ বিষয়ে চায়না মেজর ব্রিজ ইঞ্জিনিয়ারিং কোম্পানির (এমবিইসি) একটি নির্ভরযোগ্য সূত্র জাগো নিউজকে জানান, জিয়াংকে খোঁজাখুঁজির পাশাপাশি সন্ধান চেয়ে লিফলেট বিতরণ বিতরণ করা হয়েছে।

প্রসঙ্গত, লৌহজং উপজেলার শিমুলিয়া তিন নম্বর ফেরিঘাট বরাবর মাঝনদীতে পদ্মা বহুমুখী সেতু প্রকল্পের বৈদ্যুতিক টাওয়ার নির্মাণ কাজে নিয়োজিত ছিলেন জিয়াং। সেখানে কর্মরত অবস্থায় গত মঙ্গলবার (২২ জুন) রাত সাড়ে ৮টা থেকে নিখোঁজ রয়েছেন তিনি। এরপর থেকে তাকে খুঁজতে নদীতে তল্লাশি অভিযান চালাচ্ছে মাওয়া কোস্টগার্ড, ফায়ার সার্ভিস ও নৌপুলিশ।

আরাফাত রায়হান সাকিব/এসআর/এএসএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]