রেল বিভাগের জমি উদ্ধার অভিযানে এস্কেভেটরে আগুন

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি মৌলভীবাজার
প্রকাশিত: ০৮:২৩ পিএম, ১৬ সেপ্টেম্বর ২০২১

মৌলভীবাজারের শ্রীমঙ্গলে অবৈধভাবে দখলে নেওয়া রেলওয়ের জমি উদ্ধার অভিযান পরিচালনাকালে ব্যবহৃত একটি এস্কেভেটরে আগুন ধরিয়ে দিয়েছে দুর্বৃত্তরা।

বৃহস্পতিবার (১৬ সেপ্টেম্বর) সকালে শ্রীমঙ্গল শহরের ভানুগাছ সড়কে এ ঘটনা ঘটে। খবর পেয়ে ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা দ্রুত ঘটনাস্থলে পৌঁছে আগুন নিভিয়ে ফেলেন।

jagonews24

শ্রীমঙ্গল ফায়ার সার্ভিস অ্যান্ড সিভিল ডিফেন্সের ইনচার্জ মিজানুর রহমান বলেন, কে বা কারা এ আগুন লাগিয়েছেন তা জানা যায়নি। খবর পেয়ে আমরা ঘটনাস্থলে এসে আগুন নিভিয়ে ফেলি। তদন্ত সাপেক্ষে ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ জানা যাবে।

স্থানীয়রা জানান, বৃহস্পতিবার ভানুগাছ সড়কের উত্তর পাশের রেলের ২৮৭ শতক জমির ওপর বিভিন্ন স্থাপনা উচ্ছেদ করার পরিকল্পনা ছিল রেল বিভাগের। সেই প্রস্তুতির অংশ হিসেবে সেখানে একটি এস্কেভেটর আনা হয়। এস্কেভেটরটি রেলগেট পয়েন্টে আসা মাত্র কয়েকজন র্দুবৃত্ত এর কেবিনে আগুন ধরিয়ে পালিয়ে যান। আগুনে যন্ত্রটির ড্রাইভার কেবিন ও নিচের অংশ সম্পূর্ণ ভস্মীভূত হয়।

jagonews24

রেলওয়ের পূর্বাঞ্চল জোনের সহকারী এস্টেট অফিসার আতিকুল ইসলাম বলেন, রেলের একজন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটকে ঘটনাস্থলে পাঠানো হচ্ছে। তিনি এ বিষয়ে পরবর্তী পদক্ষেপ নেবেন।

এর আগে ২০১৯ সালের ২৭ নভেম্বর রেলের শতকোটি টাকার এই ভূমি উদ্ধার অভিযান চালায় রেল বিভাগ। শতাধিক আইনশৃঙ্খখলা বাহিনীর সহায়তায় দুটি বুলডোজার দিয়ে উচ্ছেদ অভিযান শুরু করা হয়। এতে শহরের প্রভাবশালীদের দখলে থাকা ভানুগাছ সড়কের মুক্তিযোদ্ধা কৃষি নার্সারি প্রকল্প, অভিজাত রেস্তোরাঁ, গ্যাস সিলিন্ডারের গুদাম, ফার্নিচারের শোরুম, সেলুন, চা পাতার দোকান, বাসাবাড়ি, ভ্যারাইটিজ স্টোর, ফার্মেসি, হার্ডওয়্যারের দোকান, ওয়ার্কশপ, ট্রান্সপোর্ট অফিসসহ শতাধিক পাকা স্থাপনা গুঁড়িয়ে দেওয়া হয়। এরপর রেল বিভাগের দেখভালের অভাবে জমিগুলো আবারও দখল করে স্থাপনা নির্মাণ শুরু করেন দখলদাররা।

আব্দুল আজিজ/এসআর/জেআইএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]