কুড়িগ্রামে কলেজছাত্রীর রহস্যজনক মৃত্যু

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি কুড়িগ্রাম
প্রকাশিত: ০৯:৩২ এএম, ০১ অক্টোবর ২০২১


কুড়িগ্রামের রৌমারীতে শিরিনা আক্তার (১৮) নামের এক এইচএসসি পরীক্ষার্থীর রহস্যজনক মৃত্যু হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (৩০ সেপ্টেম্বর) সন্ধ্যার দিকে উপজেলার দাঁতভাঙ্গা ইউনিয়নের ছাটকড়াইবাড়ী গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

শিরিনা ছাটকড়াইবাড়ী গ্রামের সিরাজুল ইসলামের মেয়ে। সিরাজুল ইসলাম দাঁতভাঙ্গা পোস্ট অফিসের পিয়ন। এ বছর দাঁতভাঙ্গা স্কুল অ্যান্ড কলেজের মানবিক বিভাগ থেকে এইচএসসি পরীক্ষা দেওয়ার কথা ছিল শিরিনার।

মেয়ের মৃত্যুতে শোকবিহ্বল শিরিনার মা মোছা. মেহেনিমা বেগম অভিযোগ করে জানান, ২০১৯ সালে উজান ঝগড়ার গ্রামের মোস্তাফিজুর রহমান মিঠুনের সঙ্গে আমার মেয়ের প্রেমের সম্পর্ক হয়। পড়ে দুপক্ষের সম্মতিতে শিরিনার সঙ্গে মিঠুনের বিয়ে রেজিস্ট্রি হয়। এরপর মিঠুন সেনাবাহিনীতে সদস্য হিসেবে চাকরিতে যোগ দেয়। শিরিনাকে সামাজিক ও ইসলামিকভাবে কলেমা না পড়িয়ে অন্য এক স্থানে আবার বিয়ে করে মিঠুন। পড়ে স্ত্রী হিসেবে স্বীকৃতি পেতে আমার মেয়ে বাদী হয়ে কুড়িগ্রাম আদালতে মিঠুনসহ তিনজনের নাম উল্লেখ করে মামলা করে।

স্থানীয়দের দাবি, এইচএসসি পরীক্ষার্থী শিরিনা আক্তারের সঙ্গে একই গ্রামের রৌমারী সরকারি কলেজের দপ্তরি শাজাহান আলীর ছেলে নাহিদ হাসানের প্রেমের সর্ম্পক ছিলো। এ সম্পর্ক নিয়ে শিরিনার বাবা মেয়েকে বকাবকি করেন। এতে রাগান্বিত হয়ে সে গলায় ওড়না পেঁচিয়ে ফাঁস দেয়। ঘটনার পর থেকে তার প্রেমিক নাহিদ ও পরিবারের সদস্যরা পলাতক রয়েছেন।

শিরিনার চাচা নইমউদ্দিন ওরফে বালা জানান, ক’দিন আগে গভীর রাতে নাহিদ হাসান আমার ভাতিজির (শিরিনা) ঘরে ঢুকলে তাকে আটক করা হয়। পড়ে নাহিদের বাবা শাজাহান আলী শিরিনার সঙ্গে ছেলের বিয়ে দেবেন বলে দু’দিন সময় নিলে নাহিদকে ছাড়া হয়। দু’দিন পর জানতে পারি, নাহিদ ইটালুকান্দা গ্রামের এক মেয়েকে বিয়ে করেছেন।

তিনি বলেন, ঘটনার দিন বৃহস্পতিবার দুপুরে দাঁতভাঙ্গা বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের পাশে নাহিদ শিরিনার সঙ্গে খারাপ ব্যবহার করে বলে জানতে পারি। পরে মেয়েটি গলায় ওড়না পেঁচিয়ে আত্মহত্যা করে। আমি মিঠুন ও নাহিদের বিচার চাই।

স্থানীয় ইউপি সদস্য মিজানুর রহমান জাগো নিউজকে জানান, শিরিনা নামের এক কলেজছাত্রী গলায় ওড়না পেঁচিয়ে আত্মহত্যা করেছেন। পুলিশ এসে লাশ উদ্ধার করে রৌমারী থানায় নিয়ে গেছে। তবে কী কারণে আত্মহত্যা করেছে, তা আমার জানা নেই।

রৌমারী থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) মো. একরামুল হক বলেন, প্রাথমিকভাবে নিহত শিরিনা আক্তারের গলায় ওড়না পেঁচিয়ে আত্মহত্যার আলামত পাওয়া গেছে।

এ ব্যাপারে জানতে চাইলে রৌমারী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোন্তাছের বিল্লাহ্ জাগো নিউজকে জানান, এইচএসসি পরীক্ষার্থী শিরিনার মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য কুড়িগ্রাম মর্গে পাঠানোর প্রস্ততি চলছে। ময়নাতদন্তের প্রতিবেদন ও নিহতের পরিবারের পক্ষ থেকে লিখিত অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

মো. মাসুদ রানা/এমকেআর

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]