চোর সন্দেহে যুবককে মারধর করলেন ইউপি চেয়ারম্যান, ভিডিও ভাইরাল

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি চাঁপাইনবাবগঞ্জ
প্রকাশিত: ০৩:০৮ পিএম, ২০ অক্টোবর ২০২১

চাঁপাইনবাবগঞ্জে সাইকেল চোর সন্দেহে গলায় গামছা পেঁচিয়ে যুবককে বেধড়ক মারধরের অভিযোগ উঠেছে স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান শাহীদ রানা টিপুর বিরুদ্ধে। মারধরের একটি ভিডিও বুধবার (২০ অক্টোবর) দুপুরে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ফেসবুকে ভাইরাল হয়।

আড়াই মিনিটের ভিডিওতে দেখা যায়, একটি কক্ষে চারদিকে কয়েকজন মানুষ দাঁড়িয়ে এবং বসে আছেন। তাদের মাঝে মাথায় গামছা বাঁধা অবস্থায় এক যুবক দাঁড়িয়ে আছেন। সাইকেল চুরির বিষয়টি বের করতে তার পায়ে একজন লাথি মারেন। এরপর খাটে বসে থাকা এক ব্যক্তি বেতের লাঠি দিয়ে তার গায়ে আঘাত করতে থাকেন। এ সময় ওই যুবক আর্তনাদ করতে থাকেন। কিছু সময় পর তার বুকেও লাথি মারতে থাকেন। এক পর্যায়ে যুবকের গলায় পা দিয়ে চেপেও ধরেন। পরে গলায় গামছা পেঁচিয়ে তাকে আবারো মারতে থাকেন।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, মারধরের শিকার ওই যুবকের নাম শহিদুল। তাকে মারধর করা ব্যক্তি সদর উপজেলার চরবাগডাঙ্গা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান শাহীদ রানা টিপু। রোববার (১৭ অক্টোবর) চরবাগডাঙ্গা ইউনিয়ন পরিষদে মারধরের এ ঘটনা ঘটে।

ভুক্তভোগী শহিদুল জানান, রোববার বিকেলে চরবাগডাঙ্গা বাজারে ধাক্কা লেগে একটি বাইসাইকেল পড়ে যায়। আমি সাইকেলটি তুলতে যাই। এ সময় চোর সন্দেহে মারধর শুরু করে এলাকাবাসী। এক পর্যায়ে ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান শাহীদ রানা টিপুকে আমাকে ধরে নিয়ে গিয়ে অনেক মারধর করে।

মারধরের বিষয়ে জানতে চাইলে ইউপি চেয়ারম্যান শাহীদ রানা টিপু জাগো নিউজকে বলেন, আমি যার সাইকেল তাকে সান্ত্বনা দিতেই ওই যুবককে শাস্তি দিয়েছি। আর বাজারে শত জনগণের মাঝ থেকে তাদের বুঝ দেওয়ার জন্য আমি তাকে নিয়ে আসি। আমি কি তাকে দুটা বাড়ি মারতে পারি না? এটা কি আমার অধিকার নাই?

এ বিষয়ে জানতে চাইলে চাঁপাইনবাবগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোজাফফর হোসেন জাগো নিউজকে বলেন, বিষয়টি আমি শুনেছি। কিন্তু কেউ লিখিত অভিযোগ করেনি। অভিযোগে পেলে তদন্ত করে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদর উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) ইফফাত জাহান বলেন, যদি অভিযোগ করে এবং অভিযোগের সত্যতা পাওয়া যায় তাহলে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

সোহান মাহমুদ/এসজে/জেআইএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]