গাজীপুরে গতির সঙ্গে বেড়েছে দুর্ঘটনা-প্রাণহানি

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি গাজীপুর
প্রকাশিত: ০৮:৫৬ এএম, ২২ অক্টোবর ২০২১

গাজীপুর থেকে ঢাকা-ময়মনসিংহ ও ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়ক চার লেনে উন্নিত হলেও দুর্ঘটনা কমেনি। মসৃণ সড়কে দ্রুতগতির কারণে যানবাহন নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে, মহাসড়ক পার হওয়র সময়, ওভারটেকিংয়ের সময় এবং মহাসড়কের পাশে দাঁড়িয়ে থাকা গাড়িতে ধাক্কার ঘটনা বাড়ছে।

ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কে চলাচলকারী সৌখিন পরিবহনের চালক মোতালেব মিয়া জানান, চার লেনের এ মহাসড়কে গাজীপুর চৌরাস্তা থেকে সালনা, রাজেন্দ্রপুর, হোতাপাড়া, ভাবনীপুর, জৈনা বাজার এবং ভালুকা, ত্রিশাল, বগার বাজার, সিডস্টোরসহ বিভিন্ন ব্যস্ততম স্থান অতিক্রমকালে অনেকটা ঝুঁকি নিয়ে বাস চালাতে হয়। কারণ মহাসড়কের উভয় দিকেই বিভিন্ন শিল্প কলকারখানা ও হাট-বাজার। রাস্তা পারাপারে ওইসব এলাকায় কোনো নিয়মনীতি মানে না সাধারণ মানুষ। যে কারণে প্রায়ই দুর্ঘটনা ঘটে।

বাঘেরবাজার এলাকার ব্যবসায়ী রহমত উল্লাহ জানান, রাস্তার দুই পাশে অবৈধ হাট-বাজার বসায় মহাসড়কের চার লেন দুই লেনে পরিণত হয়েছে। এতে যানবাহন চলাচলে ব্যাঘাত সৃষ্টি হয়। সড়কের উভয় পাশে বাস, ট্রাক, কাভার্ডভ্যানসহ বিভিন্ন যানবাহন পার্কিং করে রাখার কারণে রাতে ও ভোরে থেমে থাকা যানবাহনে পেছন থেকে ধাক্কা দিয়ে দুর্ঘটনা বেড়েছে। সম্প্রতি ময়মনসিংহে এমন এক দুর্ঘটনায় সাতজনের প্রাণহানি ঘটেছে।

jagonews24

স্থানীয়রা জানান, মহাসড়কে দুর্ঘটনার জন্য বাস-ট্রাকের বেপরোয়া গতির পাশাপাশি বেপরোয়া মোটরসাইকেলও দায়ী। অনভিজ্ঞ চালক ও ফিটনেসবিহীন যানবাহনও দুর্ঘটনার জন্য অনেকাংশে দায়ী। এছাড়া ট্রাফিক আইন ও নিয়ম-কানুন না মানায় অহরহ ঘটছে দুর্ঘটনা। রাস্তা প্রশস্ত হওয়ার কারণে চলাচলে গতি যেমন বেড়েছে তেমনি বেড়েছে দুর্ঘটনা-প্রাণহানি।

অন্যদিকে গাজীপুর চান্দনা চৌরাস্তা থেকে টাঙ্গাইল পর্যন্ত বিভিন্ন ব্যস্ততম স্থানে হাটবাজার, রাস্তার পাশে অবৈধ পার্কিং এবং বেপরোয়া গতিতে যানবাহন ও মোটরসাইকেল চালানোর কারণে দুর্ঘটনা ঘটছে প্রতিনিয়তি।

কোনাবাড়ি এলাকার ব্যবসায়ী রিমন সরকার জানান, মহাসড়কে চলাচলকারী সিএনজি অটোরিকশা, ব্যাটারিচালিত ইজিবাইক, অটোরিকশাসহ তিন চাকার যানবাহন অবৈধভাবে চলাচলের কারণ দুর্ঘটনা ও যানজট হয়।

এদিকে, গাজীপুরের চান্দনা চৌরাস্তা থেকে শ্রীপুরের জৈনা বাজার পর্যন্ত মহাসড়কে বিভিন্ন ব্যস্ততম স্থানে ফুটওভার ব্রিজ ও রোড ডিভাইডার উঁচু করে লোহার দেয়াল দেওয়া হচ্ছে। যাতে পথচারীরা যত্রতত্র মহাসড়ক পার না হয়ে নির্দিষ্ট স্থান ও ফুট ওভারব্রিজ ব্যবহার করতে পারে।

jagonews24

মাওনা হাইওয়ে পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কামাল হোসেন জানান, প্রশস্ত সড়কে অতিরিক্ত গতিতে গাড়ি চালানো এবং ওভার টেকিংয়ের সময় অনেক দুর্ঘটনা ঘটছে। এছাড়া অবৈধ পার্কিংয়ের বিরুদ্ধে অভিযান অব্যাহত রয়েছে। সড়কের শৃঙ্খলা বজায় রাখতে হাইওয়ে পুলিশ কাজ করছে। রাস্তায় অটোরিকশাসহ সব ধরনের অবৈধ যানবাহনের বিরুদ্ধে অভিযান অব্যাহত রয়েছে।

নিরাপদ সড়ক চাই গাজীপুর জেলা শাখার সভাপতি ডা. লোকমান হোসেন জানান, সড়ক দুর্ঘটনা রোধে বিভিন্ন সময় প্রচার প্রচারণা চালানো হয়। দুর্ঘটনা রোধে চালকদের পাশাপাশি পথচারীদেরও সচেতন হতে হবে।
গাজীপুরের জেলা প্রশাসক এস এম তরিকুল ইসলাম জানান, মহাসড়কে দুর্ঘটনা রোধে চালক এবং পথচারী উভয়কে ট্রাফিক আইন মেনে চলতে হবে। মহাসড়কে অবৈধ ও ফিটনেসবিহীন যানবাহন চলাচলের বিরুদ্ধে নিয়মিত মোবাইল কোর্ট পরিচালিত হচ্ছে।

মো. আমিনুল ইসলাম/এএইচ/জিকেএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]