৫ লাশ ফেলার হুমকি দিয়ে পালালো ছাত্রলীগ নেতা, খুঁজছে পুলিশ

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি ব্রাহ্মণবাড়িয়া
প্রকাশিত: ০৯:১৯ পিএম, ২৬ নভেম্বর ২০২১
একটি ছবিতে আশরাফুল আলমের এক হাতে চাপাতি ও আরেক হাতে বল্লম দেখা গেছে

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নবীনগর উপজেলার নবীনগরে নৌকার বিরুদ্ধে ভোট দিলে পাঁচ লাশ ফেলে দেওয়ার হুমকিদাতা ছাত্রলীগ নেতা আশরাফুল আলমকে খুঁজছে পুলিশ। তার ফোনটিও বন্ধ রয়েছে।

ছাত্রলীগ নেতা আশরাফুল আলম উপজেলার পশ্চিম ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগ মনোনীত চেয়ারম্যান প্রার্থী ফিরোজ মিয়ার ভাতিজা।

বৃহস্পতিবার (২৫ নভেম্বর) রাতে স্থানীয় লাপাং স্কুল মাঠে আওয়ামী লীগ প্রার্থীর সমর্থনে অনুষ্ঠিত সভায় বক্তব্য দিয়ে আলোচনায় এসেছেন এ ছাত্রলীগ নেতা। ওই বক্তব্যের একটি ভিডিও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছড়িয়ে পড়েছে। বক্তব্যটি নিজের বলে স্বীকারও করেছেন তিনি।

ভাইরাল বক্তব্যে আশরাফুল আলমকে বলতে শোনা যায়, ‘প্রশাসন কাজ করুক বা না করুক নৌকার বিরুদ্ধে যদি একটা ভোটও কাটে, ওই ওয়ার্ডে পাঁচটা লাশ পড়বে ইনশাল্লাহ। লিডার ছাত্রলীগতো, আবেগে চইলা আসছে। ইনশাল্লাহ নৌকার বিপক্ষে কেউ ভোট কাটতে পারবে না। আমরা শক্ত হাতে প্রতিবাদ করবো।’

বক্তব্যের বিষয়ে আশরাফুল আলমের ভাষ্য, ‘‘আমাদের সভা চলাকালে পাশের চিত্রী গ্রামে নৌকার বিপক্ষে ভোট কাটা হবে বলে খবর পেয়েছিলাম। তাই মুখে এমন কথা এসে গেছে। আসলে বয়স অল্পতো, বিবেকের তাড়নায় তখন বলে ফেলেছি নৌকার বিপক্ষে যদি কেউ ভোট কাটতে আসে দরকার হলে পাঁচটা লাশ ফেলবো। আবেগে বলে ফেলেছি।’

এদিকে, হুমকিদাতা ছাত্রলীগ নেতা আশরাফুল আলমের একটি ছবিও ভাইরাল হয়েছে। ওই ছবিতে দেখা যায়, তার এক হাতে চাপাতি ও আরেক হাতে বল্লম।

শুক্রবার (২৬ নভেম্বর) সন্ধ্যায় নবীনগর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আমিনুর রশিদ বলেন, ‘আশরাফুল আলম এলাকা ছেড়ে পালিয়েছেন। তাকে গ্রেফতার করতে এক প্লাটুন পুলিশ মাঠে কাজ করছে। তার মোবাইল নম্বর সংগ্রহ করা হয়েছে। তার অবস্থান শনাক্তে কাজ করছে পুলিশ।’

আবুল হাসনাত মো. রাফি/এসআর/এএসএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]