মুকসুদপুরে নির্বাচন পরবর্তী সহিংসতায় আহত ১০

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি
প্রকাশিত: ১২:৪০ এএম, ০২ ডিসেম্বর ২০২১

গোপালগঞ্জের মুকসুদপুর উপজেলায় নির্বাচন পরবর্তী সহিংসতায় মোচনা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদকসহ ১০ জন আহত হয়েছে। এই হামলার অভিযোগ উঠেছে নবনির্বাচিত চেয়ারম্যান (স্বতন্ত্র) এমদাদ হোসেন মোল্যার সমর্থকদের ওপর।

হামলার সময় তিনটি দোকান ভাঙচুর করা হয়। ঘটনাস্থল থেকে বেশকিছু দেশীয় অস্ত্র উদ্ধার করা হয়েছে। বুধবার (১ ডিসেম্বর) সন্ধ্যায় উপজেলার মোচনা ইউনিয়নে এ হামলার ঘটনা ঘটে। মুকসুদপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবু বক্কর মিয়া হামলার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

আহত মোচনা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক ওবাইদুর রহমান লিটন জানান, গত ২৮ নভেম্বর ইউপি নির্বাচনে আওয়ামী লীগ মনোনীত নৌকা প্রতীকের প্রার্থী হিসেবে আমি নির্বাচন করি। এতে স্বতন্ত্র প্রার্থী নবনির্বাচিত চেয়ারম্যান এমদাদ হোসেন মোল্যার সমর্থকরা ক্ষিপ্ত হয়ে আমার ওপর হামলা চালিয়ে আমাকে আহত করে।

এসময় তারা আমার অন্য সমর্থকদের ওপরও হামলা চালায়। এতে ইট দিয়ে ৮ বছরের এক শিশুর মাথা থেঁতলে দেয় তারা এবং হামলায় আরও আটজন আহত হন।

হামলা চলাকালে মোচনা বাজারে তিনটি দোকান-ঘর ভাঙচুর করা হয়েছে। এ বিষয়ে মুকসুদপুর থানায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে বলে জানান তিনি।

তিনি আরও জানান, গুরুতর আহত আব্দুল্লাহ (৮), রাসেল (৩৫), কালু মোল্যা (৩২), মাসুদ (৪০), লিটন (৩২), বাদলকে (৪৫) হাসপাতালে ভর্তি করে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে।

মুকসুদপুর থানার ওসি আবু বক্কর মিয়া জানান, হামলার খবর শুনেই ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছে। সেখানে অভিযান চালিয়ে বেশকিছু দেশীয় অস্ত্র উদ্ধার করা হয়েছে। তবে এলাকার পরিস্থিতি এখন শান্ত। এখন পর্যন্ত ক্ষতিগ্রস্ত কেউ থানায় অভিযোগ দেননি। অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

এআরএ

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]