চকের ভাস্কর্য গড়ে সামিউলের জাতীয় পুরস্কার লাভ

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি কুমিল্লা
প্রকাশিত: ০২:৫৫ পিএম, ০২ ডিসেম্বর ২০২১

বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমি আয়োজিত পঞ্চম জাতীয় ভাস্কর্য প্রদর্শনী-২০২১ এ জাতীয় পুরস্কার পেলেন কুমিল্লার কৃতি সন্তান সামিউল আলম জাহেদ। সারা দেশের ১৩৫ শিল্পীদের জমাকৃত ২৫৪টি শিল্পকর্ম থেকে বাছাইকৃত ১০৭ শিল্পীর ১১৪টি শিল্পকর্ম দিয়ে সাজানো হয়েছে এ প্রদর্শনী। এদের মধ্যে ১৩ জনকে পুরস্কৃত করা হয়।

এবার চক দিয়ে তৈরি ভাস্কর্যের জন্য কুমিল্লার সামিউলকে জাতীয় সম্মানসূচক পুরস্কার দেয়া হয়। ভাস্কর্যটি তৈরি করতে তার সময় লেগেছে প্রায় ১৫ বছর। সামিউল বর্তমানে কুমিল্লা কালেক্টরেট স্কুল ও কলেজের সহকারী শিক্ষক হিসেবে কর্মরত রয়েছেন।

jagonews24

শিল্পকর্মের বিষয়ে জানতে চাইলে সামিউল আলম জাহেদ জাগো নিউজকে বলেন, ২০০২ সাল থেকে ভাস্কর্যের কাজটি শুরু করে ২০১৭ সাল পর্যন্ত তিনি দেশ ও বিশ্ববরণ্য শতাধিক ব্যক্তির ভাস্কর্য তৈরি করেন ব্ল্যাকবোর্ডে লেখার চক দিয়ে। সামিউলের তৈরি ভাস্কর্যে উল্লেখযোগ্যভাবে স্থান পেয়েছে ইতিহাসের মহানায়ক জাতীর জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান, মাওলানা আবদুল হামিদ খান ভাসানী, শেরে বাংলা একে ফজলুল হক, জাতীয় কবী কাজী নজরুল ইসলাম, চিত্রশিল্পী জয়নুল আবেদিন, বিশিষ্ট কথা সাহিত্যিক ও নাট্যকার হুমায়ূন আহমেদসহ দেশ-বিদেশের বরণ্য ব্যক্তিরা।

jagonews24

এ পর্যন্ত তিনি একশরও অধিক ভাস্কর্য তৈরি করেছেন। এর মধ্যে বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমি আয়োজিত ৫ম জাতীয় ভাস্কর্য প্রদর্শনীতে ৭২টি ভাস্কর্য স্থান পেয়েছে।

সামিউল আলম জাহেদ কুমিল্লা শহরতলীর চান্দপুর এলাকার বাসিন্দা। তিনি ২০০২ সালে কুমিল্লা হাইস্কুল থেকে এসএসসি, ২০০৪ সালে কুমিল্লা ভিক্টোরিয়া সরকারি কলেজ থেকে এইচএসসি, ২০০৮ সালে একই কলেজ থেকে অর্থনীতিতে স্নাতক এবং ২০০৯ সালে স্নাতকোত্তর পাস করেন। এরপর ২০১৭ সালে ঢাকা আর্ট কলেজ থেকে বিএফএ (ডিগ্রি) এবং ২০১৯ সালে এমএফএ (প্রিন্টিং এন্ড ড্রয়িং) পাস করেন।

jagonews24

তিনি চলতি বছরের মার্চে অনুষ্ঠিত কুমিল্লা শিল্পকলা একাডেমী ও পথিকৃৎ কুমিল্লা চারুশিল্প পরষিদ আয়োজিত প্রদর্শনী অনুষ্ঠানে বর্ষসেরা পুরস্কার পেয়েছেন। এছাড়াও ২০১৭ সালে ঢাকা আর্ট কলেজে প্রদর্শনী অনুষ্ঠানেও তিনি বর্ষসেরা পুরস্কার পান।

বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমি আয়োজিত চিত্রশালা গ্যালারিতে এ প্রদর্শনী চলবে ২৮ ডিসেম্বর পর্যন্ত। দর্শনার্থীদের জন্য বেলা ১১টা থেকে রাত ৮টা এবং শুক্রবার বিকেল ৩টা থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত খোলা থাকবে।

জাহিদ পাটোয়ারী/এফএ/জিকেএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]