আদমজী ইপিজেডে ডাকাতির ঘটনায় ৫ ডাকাত গ্রেফতার


প্রকাশিত: ১১:৪৬ এএম, ৩০ ডিসেম্বর ২০১৫

সিদ্ধিরগঞ্জের আদমজী ইপিজেডের একটি ফ্যাক্টরির মালামাল ভর্তি কাভার্ডভ্যান ডাকাতির ঘটনায় যুবলীগ ক্যাডার ও তার চার সহযোগীকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। মঙ্গলবার রাতে তাদেরকে সিদ্ধিরগঞ্জের বিভিন্ন এলাকা থেকে গ্রেফতার করা হয়।

গ্রেফতাররা হলেন, যুবলীগ ক্যাডার ও একাধিক মামলার আসামি মোহাম্মদ হোসেন মোহন ওরফে শুটার মোহন, দেলোয়ার হোসেন, ওরফে দেলু ডাকাত, বাদশা মিয়া ওরফে মান্না, মোজাম্মেল হক ডালিম ও রাজন ইসলাম। গ্রেফতারদের বুধবার আদালতে পাঠানো হয়েছে।

সিদ্ধিরগঞ্জ থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মু. সরাফত উল্লাহ জানান, আদমজী ইপিজেডের ফ্রেম ওয়েল্ডিং ইন্টারলাইজিং নামক একটি গার্মেন্টের মালামাল ভর্তি একটি কাভার্ডভ্যান ২৪ ডিসেম্বর বিকেলে ঢাকায় যাচ্ছিল। পথিমধ্যে যুবলীগ ক্যাডার অস্ত্রসহ একাধিক মামলার আসামি মোহাম্মদ হোসেন মোহন ওরফে শুটার মোহন, দেলোয়ার হোসেন ওরফে দেলু ডাকাত, বাদশা মিয়া ওরফে মান্না, মোজাম্মেল হক ডালিম, রাজন ইসলাম সাড়ে ১৭ লাখ টাকা মূল্যমানের মালামালগুলো ডাকাতি করে নিয়ে যায়।

এ ঘটনায় ওই প্রতিষ্ঠানটির সিনিয়র এক্সিকিউটিভ অফিসার এম এ কোরাইশি সিদ্ধিরগঞ্জ থানায় একটি মামলা (নং-৪৬, তাং-২৫-১২-২০১৫ইং) দায়ের করে। পরে পুলিশ

তাদেরকে সিদ্ধিরগঞ্জের বিভিন্ন এলাকা থেকে তাদেরকে গ্রেফতার করে রূপগঞ্জের রূপসী গন্ধবপুর এলাকা থেকে ৩০ লাখ টাকা মূল্যমানের গাড়িটি উদ্ধার করে। এরপর তাদেরকে সঙ্গে নিয়ে পুলিশ ঢাকার গুলিস্তানের রেলওয়ে মার্কেটের গ্রেফতার হওয়া রাজনের দোকান থেকে মালামালগুলো উদ্ধার করে। গ্রেফতার হওয়া যুবলীগ ক্যাডার মোহাম্মদ হোসেন মোহন ওরফে শুটার মোহন আদমজী ইপিজেডের তালিকাভুক্ত ঠিকাদার। রিয়া এন্টারপ্রাইজ নামে তার একটি ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান রয়েছে। ওই প্রতিষ্ঠানের মাধ্যমে তিনি বিভিন্ন তথ্য পান বলে জানিয়েছেন প্রতিষ্ঠানটির সিনিয়র এক কর্মকর্তা।

কিছুদিন আগে তার ভাই রুবেলকে একটি অস্ত্র ও গুলিসহ সিদ্ধিরগঞ্জ থানা পুলিশ গ্রেফতার করে।

হোসেন চিশতী শিপলু/এমজেড/আরআইপি

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]