ধর্ষণের পর ফাঁসিতে ঝুলিয়ে রাখা হলো ৮ বছরের শিশুকে

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি
প্রকাশিত: ০৯:৪৫ এএম, ০৪ ডিসেম্বর ২০২১

দিনাজপুরের বিরল উপজেলায় ৮ বছরের শিশুকে ধর্ষণের পর ফাঁসিতে ঝুলিয়ে রাখার ঘটনা ঘটেছে। ধর্ষণের শিকার শিশুটি দিনাজপুরের এম. আব্দুর রহিম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে আইসিইউতে লাইফ সাপোর্টে চিকিৎসাধীন রয়েছে।

এ ঘটনায় ধর্ষক রাসেল হোসেনকে (২৫) আটক করেছে পুলিশ। রাসেল ওই গ্রামের মৃত ওসমান গনির ছেলে। তিনি পেশায় একজন গরু ব্যবসায়ী।

বৃহস্পতিবার বিকেলে বিরল উপজেলার ৫নং ভান্ডারা ইউনিয়নের ভান্ডারা পাগলাপীর গ্রামে এই ধর্ষণের ঘটনা ঘটে। ধর্ষণের শিকার ওই শিশু একটি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের দ্বিতীয় শ্রেণির ছাত্রী।

ধর্ষণের শিকার শিশুর মায়ের বরাত দিয়ে বিরল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ফখরুল ইসলাম জানান, দিনমজুর বাবা প্রতিদিনের মতো বৃহস্পতিবার দুপুরে খাওয়া শেষ করে কাজে বেরিয়ে পড়েন। বিকেলে মা শিশুটিকে বাড়িতে রেখে গরু-ছাগলের জন্য মাঠে ঘাস কাটতে যান। এ সময় রাসেল হোসেন শিশুটিকে একা পেয়ে বাড়িতে ধর্ষণ করেন। ধর্ষণের পর শিশুকে হত্যার উদ্দেশ্যে বারান্দার বাঁশের তীরে ফাঁস লাগিয়ে ঝুলিয়ে দেন।

ওই সময় শিশুটির মা বাড়িতে এসে ঢুকলে ধর্ষক রাসেল পালিয়ে যান। পরে মা ও স্থানীয়রা শিশুটিকে উদ্ধার করে বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় দিনাজপুরের এম. আব্দুর রহিম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করেন। বর্তমানে শিশুটি হাসপাতালের আইসিইউতে লাইফ সাপোর্টে রয়েছে।

ওসি ফখরুল ইসলাম আরও জানান, ওই রাতে অভিযান চালিয়ে ধর্ষক রাসেলকে আটক করা হয়। তবে শুক্রবার রাতে শিশুটির বাবা এ ঘটনায় অজ্ঞাত আসামির নামে থানায় মামলা করেছেন। তারপরও আটক রাসেলকে ওই মামলার সন্দেহভাজন আসামি হিসেবে গ্রেফতার দেখিয়ে শনিবার আদালতে পাঠানো হবে।

দিনাজপুরের এম. আব্দুর রহিম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ওয়ার্ড মাস্টার মাসুদ রানা জানান, বিরলে ধর্ষণের শিকার শিশু হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে। তাকে আইসিইউতে লাইফ সাপোর্টে রাখা হয়েছে। তার অবস্থা আশঙ্কাজনক।

এমদাদুল হক মিলন/এফএ/এমএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]