হাতিয়ার নিমতলী সৈকত শিগগির পর্যটন উপযোগী হবে

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি নোয়াখালী
প্রকাশিত: ০৯:০৩ পিএম, ১৫ জানুয়ারি ২০২২
নিমতলী সৈকত পরিদর্শনে যান বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন প্রতিমন্ত্রী এম মাহবুব আলী

পর্যটকদের জন্য আকর্ষণীয় করতে নোয়াখালীর দ্বীপ উপজেলা হাতিয়ার নিমতলী সৈকতকে আরও ভ্রমণ সমৃদ্ধ করে গড়ে তোলা হবে বলে জানিয়েছেন বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন প্রতিমন্ত্রী এম মাহবুব আলী।

শনিবার (১৫ জানুয়ারি) সকালে জাহাজমারা ইউনিয়নের নিমতলী সৈকত পরিদর্শনে গিয়ে তিনি এ কথা বলেন।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, কেওড়াবাগান ও বিশাল সমুদ্রসৈকতের পাশাপাশি নিমতলী সৈকতে রয়েছে বিশাল মাঠ, যা পর্যটকদের জন্য আকর্ষণীয়। এখানে সবকিছুরই মিশ্রণ আছে। তাই শিগগির এ সৈকতকে ভ্রমণপিপাসুদের জন্য উপযোগী করে গড়ে তোলা হবে। ভবিষ্যতে এ সৈকত ভ্রমণে দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে হাজার হাজার পর্যটক আসবে বলে আশা করি।

এ সময় আরও উপস্থিত ছিলেন, নোয়াখালী-৬ আসনের সংসদ সদস্য আয়েশা ফেরদাউস, বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রণালয়ের সচিব মো. মোকাম্মেল হোসেন, বাংলাদেশ ট্যুরিজম বোর্ডের প্রধান নির্বাহী (অতিরিক্ত সচিব) জাবেদ আহমেদ, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মো. সেলিম হোসেনসহ উপজেলা প্রশাসনের কর্মকর্তা ও স্থানীয় আওয়ামী লীগের নেতারা উপস্থিত ছিলেন।

এদিকে প্রতিমন্ত্রীর আগমন উপলক্ষে নিমতলী সৈকতে পর্যটকসহ স্থানীয় জনগণের বিপুল সমাগম হয়। পুরো সৈকত এলাকায় ব্যানার–ফেস্টুনে মন্ত্রীকে স্বাগত জানানো হয়।

হাতিয়ার জাহাজমারা ইউনিয়নের পূর্ব পাশে নিমতলী সৈকত অবস্থিত। কয়েক বছর ধরে দেশের বিভিন্ন অঞ্চল থেকে পর্যটকেরা নিমতলী সৈকত ভ্রমণে আসছেন। সম্প্রতি এখানে খাওয়ার হোটেল, সৈকতে বসার জন্য চেয়ার, ঘোড়া এবং রাত যাপনের জন্য তাবুর ব্যবস্থাও চালু করা হয়েছে।

ইকবাল হোসেন মজনু/এসজে/জেআইএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]