ঠাকুরগাঁওয়ে ১৩টি পরিবারের ঘরবাড়ি পুড়ে ছাই

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি ঠাকুরগাঁও
প্রকাশিত: ০১:৪১ এএম, ২০ জানুয়ারি ২০২২
পরিবারগুলোর প্রায় ৫০ লাখ টাকার ক্ষতি হয়েছে বলে স্থানীয়দের ধারণা

ঠাকুরগাঁওয়ে ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডে ১৩টি পরিবারের অন্তত ৫০টিরও বেশি ঘর পুড়ে ছাই হয়ে গেছে। এছাড়াও আরও ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে ১০ থেকে ১২টি পরিবার। তবে কোনো হতাহতের ঘটনা ঘটেনি।

বুধবার (১৯ জানুয়ারি) রাত ১১টায় সদর উপজেলার জামালপুর ইউনিয়নের পটুয়া পাইকপাড়া গ্রামে এ অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটে।

ঠাকুরগাঁও ফায়ার সার্ভিসের ইনচার্জ ফরহাদ হোসেন ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন। তবে আগুনের সূত্রপাত সম্পর্কে বিস্তারিত কিছু জানানি তিনি।

ক্ষতিগ্রম্ত আনোয়ার হোসেন বলেন, প্রতিবেশী হাসিরুলের বাড়িতে বৈদ্যুতিক তার থেকে আগুনের সূত্রপাত ঘটে। পরে আগুনে আমারসহ আরও ১৩ থেকে ১৪টি পরিবারের ঘর পুড়ে যায়। আমরা অনেক চেষ্টা করেও আগুন নিয়ন্ত্রণ করতে পারিনি। পরে ফায়ার সার্ভিস এসে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে।

প্রত্যক্ষদর্শী শামসুল বলেন, আগুনে যাদের ঘর পুড়েছে তারা সবাই দিনমজুর। কোনো ঘর থেকেই কিছু উদ্ধার করা সম্ভব হয়নি। ঘরে থাকা চাল, ডাল, খাতা কলম, টাকা-পয়সা সব পুড়ে ছাই হয়ে গেছে। কয়েকটি গবাদি পশুও অগ্নিদগ্ধ হয়েছে। পরিবারগুলো সব হারিয়ে একদম নিঃস্ব হয়ে গেছে।

আরেফিন আলম নামে আরেকজন বলেন, আজকের অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় কমপক্ষে এই পরিবারগুলোর প্রায় ৫০ লাখ টাকার ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। সম্প্রতি জেলার এত বড় অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটেনি।

রাতে দুর্ঘটনাস্থল থেকে ফায়ার সার্ভিসের ইনচার্জ ফরহাদ হোসেন বলেন, আগুন এখনো পুরোপুরি নেভানো যায়নি, তবে নিয়ন্ত্রণে আনা হয়েছে। এখানে স্থানীয় জনপ্রতিনিধিরা আসছেন। এখনো আগুনের সূত্রপাত জানা যায়নি।

ঠাকুরগাঁও সদর উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা আবু হাতের মোহম্মদ সামসুজ্জামান বলেন, অগ্নিকাণ্ডের ঘটনাটি মর্মান্তিক। সেখানে আজ রাতেই ত্রাণ সামগ্রী ও প্রয়োজনীয় শীতবস্ত্র পাঠানো হয়েছে। সেগুলো এতক্ষণে বিতরণও হয়েছে। এছাড়াও আমরা প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করবো।

তানভীর হাসান তানু/ইএ

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]