এক গ্রামে ৩ প্রার্থী, বিপাকে ভোটাররা

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি সিরাজগঞ্জ
প্রকাশিত: ০৩:৫৮ পিএম, ২৮ জানুয়ারি ২০২২
সিরাজগঞ্জের তাড়াশ উপজেলার মাধাইনগর গ্রামে তিনজন ইউপি চেয়ারম্যান প্রার্থী হয়েছেন

সিরাজগঞ্জের তাড়াশ উপজেলায় ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) নির্বাচনে এক গ্রাম থেকেই চেয়ারম্যান পদে প্রার্থী হয়েছেন তিনজন। এতে বিপাকে পড়েছেন ভোটাররা। একজনের পক্ষে প্রচারে গেলে অন্যজন রাগ করছেন। স্থানীয়রা বলছেন, স্বাধীনতার পর এই প্রথম ওই গ্রাম থেকে একইসঙ্গে তিনজন চেয়ারম্যান প্রার্থী হয়েছেন।

আগামী ৭ ফেব্রুয়ারি তাড়াশ উপজেলার বারুহাস ও মাধাইনগর ইউনিয়নে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। মাধাইনগর ইউনিয়নে পাঁচজন চেয়ারম্যান প্রার্থী ভোটযুদ্ধে নেমেছেন। এদের মধ্যে তিনজনই ওই ইউনিয়নের ভিকমপুর গ্রামের।

ভিকমপুর গ্রামের প্রার্থীরা হলেন-সাবেক চেয়ারম্যান সাইদুর রহমান, আব্দুল হান্নান ও আব্দুস সাত্তার। তারা সবাই স্বতন্ত্র প্রার্থী। বাকি দুজন প্রার্থী হলেন-মাদারজানি গ্রামের আবুল বাসার (স্বতন্ত্র) ও কাস্তা গ্রামের হাবিবুর রহমান হাবিব (নৌকা)।

ভিকমপুর গ্রামের আব্দুস ছামাদ, আব্দুল কুদ্দুস ও সোলায়মানসহ কয়েকজন ভোটার জাগো নিউজকে বলেন, ‘স্বাধীনতার পর এই প্রথম ভিকমপুর গ্রাম থেকে তিনজন চেয়ারম্যান প্রার্থী নির্বাচন করছেন। তিনজন প্রার্থী হওয়ায় আমরা সাধারণ ভোটাররা বিপাকে পড়েছি। প্রচারণায় বাধার মুখে পড়তে হচ্ছে। একজনের পক্ষে গেলে অন্য প্রার্থী রাগ করছেন।’

ভিকমপুর গ্রামের ভোটার আজমল হক বলেন, ‘আমাদের গ্রামে একসঙ্গে তিনজন চেয়ারম্যান প্রার্থী হতে আগে কোনো দিন দেখিনি। এজন্য বাধ্য হয়ে ঢাকায় যাচ্ছি। কারও প্রতিপক্ষ হতে চাই না। ভোটের আগের দিন এসে ভোট দেবো।’

এ বিষয়ে সাবেক চেয়ারম্যান মো. সাইদুর রহমান (স্বতন্ত্র) বলেন, আমি মাধাইনগর ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান ছিলাম। ইউনিয়নে আমার জনপ্রিয়তা আছে। সুষ্ঠু ভোট হলে আমিই জয়ী হবো।’

এক গ্রামে তিনজন প্রার্থীর বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘প্রথমে এরা কেউ নির্বাচন করতে চায়নি। পরে তারা নির্বাচনে এসে আমার ক্ষতি করার চেষ্টা করছে।’

তাড়াশ উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা উজ্জল কুমার রায় জানান, আগামী ৭ ফেব্রুয়ারি নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। নির্বাচনের পরিবেশ এখন পর্যন্ত সুষ্ঠু রয়েছে।

এসআর/এমএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]