কম মজুরিতে কাজে না যাওয়ায় বৃদ্ধকে পিটিয়ে জখম

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি চুয়াডাঙ্গা
প্রকাশিত: ০৪:০১ পিএম, ১৯ মে ২০২২
হাসপাতালে বেড়ে হায়াত আলী

চুয়াডাঙ্গায় কম মজুরিতে কাজে না যাওয়ায় হায়াত আলী (৬৫) নামের এক বৃদ্ধকে পিটিয়ে জখমের অভিযোগ উঠেছে।

বুধবার (১৮ মে) রাত ৮টার দিকে সদর উপজেলার জালশুকা গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। ওই ঘটনায় থানায় লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন তিনি।

আহত হায়াত আলী অভিযোগ, মঙ্গলবার বিকেলে শঙ্করচন্দ্র গ্রামের আনসার ক্যাম্পপাড়ার তোফাজ্জেল হোসেন তার পাটক্ষেতে কাজ করার জন্য বলেন। আমি ৪০০ টাকা মজুরি চাইলে তোফাজ্জেল ৩৫০ টাকা দিতে চান। কম মজুরিতে কাজে যেতে রাজি হইনি আমি। বুধবার রাতে গ্রামের একটি চায়ের দোকানে বসে চা খাচ্ছিলাম। এসময় তোফাজ্জেল ও তার ছেলে ওবায়দুল আমাকে দোকানের বাইরে ডেকে নিয়ে যান। বাইরে আসতেই কাজে কেন যাইনি জিজ্ঞেস করে বাঁশ ও কাঠ দিয়ে পিটিয়ে জখম  করেন। পরে পরিবারের লোকজন সেখান থেকে আমাকে উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করেন।

তবে বিষয়টি অস্বীকার করে তোফাজ্জেল হোসেন বলেন, ৩৫০ টাকা মজুরিতে কাজে যেতে রাজি হন হায়াত আলী। পরে অন্য জায়গায় বেশি মজুরি পেয়ে কাজে চলে যান। এতে আমার একজন শ্রমিক কম হওয়ায় কাজে বিঘ্ন ঘটে। আমি তাকে কাজে কেন যায়নি জিজ্ঞেস করতেই গালিগালাজ শুরু করেন হায়াত আলী। পরে তার সঙ্গে বাগবিতণ্ডা ও ধাক্কাধাক্কি হয়। তাকে মারধর করা হয়নি।

চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালের জরুরি বিভাগের কর্তব্যরত চিকিৎসক মার্ভিন অনিক চৌধুরী বলেন, হায়াত আলীর শরীরের বিভিন্ন স্থানে আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে তাকে হাসপাতালে ভর্তি থাকার পরামর্শ দেওয়া হয়েছে।

এ বিষয়ে চুয়াডাঙ্গা সদর থানার ওসি (তদন্ত) আবু সাঈদ বলেন, ওই ঘটনায় হায়াত আলী সদর থানায় লিখিত অভিযোগ করেছেন। বিষয়টি তদন্ত করে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

সালাউদ্দীন কাজল/আরএইচ/জিকেএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]