কক্সবাজারে বিয়েবাড়ির খাবার খেয়ে ৪০ জন হাসপাতালে

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি কক্সবাজার
প্রকাশিত: ০৩:৪৫ পিএম, ২৮ মে ২০২২

কক্সবাজারের মহেশখালীতে এক বিয়েবাড়ির খাবার খেয়ে পেট ব্যথা ও ডায়রিয়ার লক্ষণ নিয়ে অন্তত ৪০ জন হাসপাতালে চিকিৎসা নিয়েছেন।

শুক্রবার (২৭ মে) রাতে মহেশখালীর দক্ষিণ জাগিরাঘোনা এলাকার সেলিমের মেয়ের বিয়ের খাবার খেয়ে এ ঘটনা ঘটে।

স্থানীয় সূত্র জানায়, শুক্রবার মহেশখালী পৌরসভার পুটিবিলা এলাকার জাহাঙ্গীরের সঙ্গে মহেশখালীর দক্ষিণ জাগিরাঘোনার সেলিমের মেয়ের বিয়ে ধার্য ছিল। এ উপলক্ষে কনের বাড়িতে বরপক্ষ গিয়ে বিয়ে শেষে খাওয়া করে বাড়ি চলে আসে। হঠাৎ গভীর রাতে বরপক্ষের লোকজনের পেটে ব্যথা শুরু হয়। শনিবার ভোর ৬টার দিকে একে একে অসুস্থ হয়ে ৪০ জন হাসপাতালে চিকিৎসা নেন।

আক্রান্তদের মধ্যে জসিম উদ্দিন, তাহেরা খাতুন, জান্নাতুল ফেরদৌস, খুরশিদা, মোহাম্মদ শফি, গিয়াস উদ্দিন, জুলেখা, নাছিমা, মকসুদ মিয়া, আরাফাত হোসেন, জাগির হোসেন, সায়মা, রাজিয়া বেগম, ইসলাম খাতুন ও রিয়া মনির নাম জানা গেছে। আক্রান্তদের প্রায় সবাই মহেশখালী পৌরসভার পুটিবিলা গ্রামের বাসিন্দা।

jagonews24

অসুস্থ জান্নাতুল ফেরদৌস জানান, শুক্রবার দুপুরে বিয়ের দাওয়াতে যাই এবং বিকেলে খাওয়া-দাওয়া করি। সন্ধ্যার পর থেকে পেটে ব্যথা শুরু হয়। রাতে পাতলা পায়খানা শুরু হলে মহেশখালী হাসপাতালে ভর্তি হই। আমার সঙ্গে আরও অনেকেই অসুস্থ হয়ে পড়েছেন।

মহেশখালী উপজেলার স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. মোহাম্মদ মাহফুজুল হক বলেন, পেট ব্যথা ও ডায়রিয়ার লক্ষণ নিয়ে প্রায় ৪০ জন হাসপাতালে আসেন। তাদের মধ্যে প্রাথমিক চিকিৎসা নিয়ে ফিরে যান পাঁচজন। বাকি ৩৫ জনকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

তিনি আরও বলেন, চিকিৎসার পর শনিবার দুপুর ২টা পর্যন্ত অনেকের পায়খানা বন্ধ হওয়ায় হাসপাতাল ত্যাগ করেছেন। বাকি ২০-২২ জন এখনো চিকিৎসা নিচ্ছেন। খাদ্যে বিষক্রিয়ায় এমনটি হয়েছে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

এই চিকিৎসক আরও বলেন, হাসপাতালে বেড় সংকট থাকলেও ফ্লোরে বিছানা পেতে দ্রুত চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে।

সায়ীদ আলমগীর/এমআরআর/এএসএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]