পদ্মা সেতু যেন শিমুলিয়াঘাটের ঈদযাত্রার চিত্র

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি মুন্সিগঞ্জ
প্রকাশিত: ০৮:৫০ পিএম, ২৬ জুন ২০২২

 

খুলে দেওয়ার প্রথমদিনেই যানবাহনের প্রচণ্ড চাপ লক্ষ্য করা গেছে পদ্মা সেতুতে। দুপুরে কিছুটা কমলেও বিকেলে যানবাহনের লম্বা সারি দেখা যায় মাওয়া টোলপ্লাজা অভিমুখে। তবে বেশিরভাগই ছিল মোটরসাইকেল।

বিভিন্ন উৎসব ও ঈদের ছুটিতে পদ্মা পারি দিতে শিমুলিয়াঘাটে যেমন যানবাহনের চাপ দেখা যায়, রোববার (২৬ জুন) যেন সেই চিত্রই দেখা গেলো পদ্মা সেতুর টোলপ্লাজায়।

স্বপ্নের পদ্মা সেতু খুলে দেওয়ার উচ্ছ্বাসে মোটরসাইকেল, পিকআপ, বাস ছাড়াও বিভিন্ন যানবাহনযোগে টোল প্লাজার সামনে আসতে থাকে মানুষ। নির্ধারিত টোল দিয়ে ওঠেন সেতুতে।

jagonews24

সেতুতে যানবাহন থামানোর নিষেধাজ্ঞা থাকলেও তা বেশিরভাগ লোকজনই মানেননি। মূল সেতুর পুরো ৬ দশমিক ১৫ কিলোমিটার জুড়েই দুইপাশে যত্রতত্র যানবাহন থামিয়ে অবস্থান নেন শত শত যাত্রীরা। কেউ ছবি বা সেলফি তোলেন। আবার কেউ নদীর দৃশ্য উপভোগ করেন। তবে দফায় দফায় আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর তৎপরতাও দেখা গেছে।

jagonews24

ঢাকার কোতোয়ালি থেকে একটি মাইক্রোবাস ভাড়া করে পরিবার নিয়ে পদ্মা সেতু দেখতে আসেন আবু তাহের। তিনি জাগো নিউজকে বলেন, ‘স্বপ্নের পদ্মা সেতুর ওপর দিয়ে যাওয়ার ইচ্ছা ছিল অনেকদিন থেকে। আজ সেই সুযোগ হওয়ায় পরিবারের সদস্যদের নিয়ে চলে এসেছি। পদ্মা সেতুর ওপর দিয়ে যাওয়ার অনুভূতি সত্যিই অসাধারণ ছিল।’

শনিবার (২৫ জুন) বেলা ১১টা ৫৮ মিনিটে মুন্সিগঞ্জের মাওয়া প্রান্তে পদ্মা সেতুর ফলক উন্মোচন করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। উদ্বোধনের প্রায় ১৮ ঘণ্টা পর রোববার (২৬ জুন) ভোর ৬টা থেকে যানবাহন চলাচলের জন্য উন্মুক্ত করে দেওয়া হয় স্বপ্নের পদ্মা সেতুর দ্বার।

পদ্মা সেতুতে প্রথম ৮ ঘণ্টায় ৮২ লাখ ১৯ হাজার ৫০ টাকার টোল আদায় করা হয়েছে। এ সময় গাড়ি চলাচল করেছে ১৫ হাজার ২০০টি।

আরাফাত রায়হান সাকিব/এসআর/জিকেএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]