‘ঢাকা গেছি ১৩ ঘণ্টায়, আইছি ৬ ঘণ্টায়’

উপজেলা প্রতিনিধি উপজেলা প্রতিনিধি কলাপাড়া (পটুয়াখালী)
প্রকাশিত: ০৯:৪৬ পিএম, ২৬ জুন ২০২২

অডিও শুনুন

অসুস্থ স্ত্রীকে ঢাকায় চিকিৎসক দেখাতে নিয়ে গিয়েছিলেন কুয়াকাটার বাসিন্দা হোসাইন আমির। ঢাকায় পৌঁছাতে সময় লেগেছিল ১৩ ঘণ্টা। স্ত্রীকে চিকিৎসক দেখিয়ে দুদিন পর ঢাকা থেকে আবার কুয়াকাটা পৌঁছেছেন তিনি। এবার তার কুয়াকাটায় ফিরতে সময় লেগেছে ৬ ঘণ্টা।

রোববার (২৬ জুন) বিকেল ৫টায় বাড়ি পৌঁছে এত দ্রুত কুয়াকাটায় পৌঁছানোর অভিজ্ঞতার কথা জানান হোসাইন আমির।

হোসাইন আমির জাগো নিউজকে বলেন, ‘দুদিন আগে আমার স্ত্রীকে ডাক্তার দেখাতে ঢাকা গিয়েছিলাম আরিচা ফেরিঘাট হয়ে। সেদিন রাতে ৭-৮ ঘণ্টা জ্যামে আটকা ছিলাম। ১৩ ঘণ্টার জার্নি শেষে ঢাকায় পৌঁছেছি। কিন্তু আজ মাত্র ছয় ঘণ্টায় ঢাকা থেকে কুয়াকাটায় চলে আসছি। এর থেকে আর কী আনন্দ থাকতে পারে আমাদের জন্য।’

jagonews24

তিনি বলেন, ‘বেলা ১১টায় ঢাকা থেকে গাড়িতে উঠছি। পথে আমরা পদ্মা সেতুতে ছবি তুলেও অনেক সময় কাটিয়েছি। তারপরও মাত্র ৬ ঘণ্টায় ৫টার মধ্যে কুয়াকাটায় পৌঁছেছি।’

ঢাকা থেকে ওই এসি বাসে (প্রচেষ্টা বাস) কুয়াকাটায় আসা আরেক যাত্রী রাসেল খান জাগো নিউজকে বলেন, ‘গাড়িটি আজ বেলা ১১টায় ঢাকা থেকে ছেড়ে মাত্র ৬ ঘণ্টায় কুয়াকাটা পৌঁছে। পথে কিছু জায়গায় রাস্তা সরু হওয়ার কারণে কিছুটা সমস্যা হয়েছে। তবে যদি রাস্তাগুলো আরও উন্নতমানের করা যায় তাহলে দুর্ঘটনার শঙ্কা কম হবে।’

প্রচেষ্টা গাড়ির চালক আলী হোসেন বলেন, ‘আজকে যে পদ্মা পাড়ি দিয়েছি তা এখনো মনে হচ্ছে না। স্বপ্ন দেখছি মনে হচ্ছে। ঢাকা থেকে কুয়াকাটায় যে সময়ে আসছি এর চেয়ে বেশি সময় ঘাটে প্রতিদিন বসে থাকি।’

তিনি বলেন, ‘আজ আমরা খুব আনন্দিত। এখন যাত্রীদের আরও বেশি সেবা দিতে পারবো। তবে কিছু জায়গায় রাস্তাগুলো একটু সমস্যা আছে। পুরো রাস্তাটা ফোর লেন হলে আমরা আরও ভালো সেবা দিতে পারবো।’

আসাদুজ্জামান মিরাজ/এসআর/জিকেএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]