জেলের জালে আটকা পড়লো বিষধর ‘রাসেল ভাইপার’

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি কুষ্টিয়া
প্রকাশিত: ০৩:১৬ পিএম, ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২২
জেলের জালে আটকা পড়ে রাসেল ভাইপার

কুষ্টিয়ার কুমারখালীতে পদ্মা নদীতে জেলের জালে আটকা পড়েছে একটি বিষধর রাসেল ভাইপার সাপ।

মঙ্গলবার (২৭ সেপ্টেম্বর) বেলা ১১টার দিকে উপজেলার কয়া ইউনিয়নের সৈয়দ মাসুদ রুমী সেতুর নিচে গড়াই নদে সাপটি অবমুক্ত করা হয়।

জানা গেছে, উপজেলার কয়া ইউনিয়নের বানিয়াপাড়া গ্রামের জেলে মো. শামিম হোসেন প্রতিদিনই পদ্মায় দোয়াড় জালের ফাঁদ পেতে মাছ শিকার করেন। মঙ্গলবার সকালে জাল থেকে মাছ বের করতে যান। জালে মাছের পরিবর্তে সাপ দেখ দেখতে পান। প্রথমে তিনি অজগর সাপ মনে করে স্থানীয়দের খবর দেন। পরে বন বিভাগের লোকজন এসে তাকে জানায় এটা বিষধর রাসেল ভাইপার। পরে সাপটিকে বনবিভাগের লোকজন নিয়ে যান।

জেলে শামিম হোসেন বলেন, প্রতিদিনই দোয়াড়ে জাল পেতে পদ্মায় মাছ ধরি। সকালে জাল তুলে দেখি একটি অন্যরকম সাপ। যা আগে কখনো দেখিনি। প্রথমে অজগর মনে করেছিলাম। পরে বনবিভাগের লোক এসে বললেন এটি বিষাক্ত রাসেল ভাইপার। সাপটি বনবিভাগ নিয়ে গেছে।

জেলের জালে আটকা পড়লো বিষধর ‘রাসেল ভাইপার’

উপজেলা বনবিভাগের কর্মকর্তা মো. আরিফুল ইসলাম জাগো নিউজকে বলেন, পদ্মা নদীতে মাছ ধরার জালে বিষাক্ত রাসেল ভাইপার আটকা পড়ে। সকালে খবর পেয়ে সাপটি উদ্ধার করা হয়। পরে গড়াই ব্রিজের নিচে অবমুক্ত করা হয়।’

উপজেলা নাগরিক কমিটির সভাপতি মো. আকরাম হোসেন, ‘পদ্মা থেকে এনে গড়াইয়ে ছেড়ে দিয়ে লাভ কী হলো। বরং গড়াই পদ্মার চেয়ে বেশি লোকালয়। এটা দায়সারা কাজ হয়েছে। অনেক দূরে কোথাও ফাঁকা স্থানে অবমুক্ত করা দরকার ছিল।’

এ বিষয়ে জেলা বনবিভাগের বনকর্মকর্তা জি এম মোহাম্মদ কবির জাগো নিউজকে বলেন, ‘ধারণা করা হচ্ছে সাপটি ভারত থেকে পদ্মা নদী হয়ে এসেছে। উদ্ধারের পর গড়াই নদে অবমুক্ত করা হয়েছে। এতে আতঙ্কের কিছু নাই। নদ বেয়ে অন্যত্র চলে যাবে।’

আল মামুন সাগর/এসজে/জেআইএম

পাঠকপ্রিয় অনলাইন নিউজ পোর্টাল জাগোনিউজ২৪.কমে লিখতে পারেন আপনিও। লেখার বিষয় ফিচার, ভ্রমণ, লাইফস্টাইল, ক্যারিয়ার, তথ্যপ্রযুক্তি, কৃষি ও প্রকৃতি। আজই আপনার লেখাটি পাঠিয়ে দিন [email protected] ঠিকানায়।