কুষ্টিয়ায় আ’লীগ কার্যালয়ের সামনে থেকে ককটেল-কাফনের কাপড় জব্দ

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি কুষ্টিয়া
প্রকাশিত: ০৬:০২ পিএম, ০৩ অক্টোবর ২০২২

কুষ্টিয়ার কুমারখালীর কয়া ইউনিয়নের ৪ নম্বর ওয়ার্ড আওয়ামী লীগ কার্যালয়ের সামনে থেকে কাফনের কাপড়, ককটেল সদৃশ লাল টেপে জড়ানো একটি কৌটা ও হাতে লেখা একটি চিঠি জব্দ করেছে পুলিশ।

সোমবার (৩ অক্টোবর) সকালে চর বানিয়াপাড়া বাজার কার্যালয় এলাকা থেকে পুলিশ এগুলো জব্দ করে। কিন্তু কে বা কারা সেগুলো রেখে গেছে তা এখনো জানা যায়নি।

তবে ইউপি চেয়ারম্যান ও স্থানীয়রা বলছেন, একদল দুষ্কৃতকারী এলাকার শান্তি বিনষ্ট ও আতঙ্ক সৃষ্টি করার লক্ষ্যে এমন অপকর্ম করতে পারে। এ ঘটনাকে কেন্দ্র করে এলাকায় আতঙ্ক ও উত্তেজনা বিরাজ করছে।

জব্দ করা চিঠিতে লেখা রয়েছে, ‘তোরা যখন এলাকায় ছিলিনি তখন সব ঠিকঠাক ছিল। কিন্তু তোরা যা করছিস তা ঠিক না। আজ নমুনা দিয়ে গেলাম। ৪৮ ঘণ্টার মধ্যে তোর জন্য বেশি না দুটো গুলিই যথেষ্ট, যা তুই উপহার পাবি। আর কাফনের কাপড়টা ঠিক করে রাখিস, যা তোর কাজে লাগবে। সাবধান, সাবধান, সাবধান।’

সোমবার দুপুর ১২টার দিকে সরেজমিন গেলে স্থানীয়রা জানান, সকালে আওয়ামী লীগ কার্যালয়ের সামনে বোমা, চিঠি, কাফনের কাপড় দেখে ইউপি চেয়ারম্যানকে জানানো হয়। পরে খবর পেয়ে পুলিশ সেগুলো নিয়ে গেছে। তবে কে বা কারা এ কাজ করেছে তা জানা যায়নি।

এ বিষয়ে স্থানীয় আওয়ামী লীগ কর্মী আক্তার হোসেন বলেন, অফিসটিতে আমি ও আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা বসেন। কে বা কারা রাতের আঁধারে অফিসের সামনে কাফনের কাপড়, বোমা, চিঠি রেখে গেছে তা জানি না। পুলিশ সেগুলো নিয়ে গেছে।

ওই আওয়ামী লীগ কার্যালয়ের পাশেই বসবাস করেন ভ্যানচালক সিয়াম। তার স্ত্রী আনিছা খাতুন বলেন, রাতে বিকট শব্দ শুনতে পাই। ভাবলাম ভ্যানের চাকা ফেটে গেছে। পরে সকালে জানতে পারলাম ককটেল বোমা ফেটেছে।

স্থানীয় কাপড় ব্যবসায়ী আবু তালেব বলেন, এলাকাবাসী খুব শান্তিতে আছে। এখানে আওয়ামী লীগের বিভিন্ন গ্রুপিং রয়েছে। হয়তো শান্তি নষ্ট করার জন্য একপক্ষ অন্যপক্ষকে ফাঁসাতে এমন কাজ করেছে। তদন্তের মাধ্যমে প্রকৃত ঘটনা বের হওয়া দরকার।

এ বিষয়ে কয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মো. আলী হোসেন বলেন, আমি শহর আওয়ামী লীগের সাবেক জ্যৈষ্ঠ সহ-সভাপতি ছিলাম। আমার কর্মীর কার্যালয়ের সামনে এমন ন্যাক্কারজনক ঘটনা ঘটিয়েছে একদল দুষ্কৃতকারী। এলাকার শান্তি নষ্ট ও আতঙ্ক সৃষ্টির জন্য এমন অপকর্ম করতে পারে তারা। এলাকায় আতঙ্ক ও উত্তেজনা বিরাজ করছে।

কুমারখালী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কামরুজ্জামান তালুকদার বলেন, চর বানিয়াপাড়া বাজার এলাকা থেকে কাফনের কাপড়, ককটেল সাদৃশ্য লাল টেপে জড়ানো একটি কৌটা ও হাতে লেখা একটি চিঠি জব্দ করা হয়েছে। বিষয়টি নিয়ে তদন্ত চলছে। পরে বিস্তারিত বলা যাবে।

আল-মামুন সাগর/এমআরআর/এএসএম

পাঠকপ্রিয় অনলাইন নিউজ পোর্টাল জাগোনিউজ২৪.কমে লিখতে পারেন আপনিও। লেখার বিষয় ফিচার, ভ্রমণ, লাইফস্টাইল, ক্যারিয়ার, তথ্যপ্রযুক্তি, কৃষি ও প্রকৃতি। আজই আপনার লেখাটি পাঠিয়ে দিন [email protected] ঠিকানায়।