২৭৯ বস্তা সরকারি চাল উদ্ধার, সাবেক আওয়ামী লীগ নেতা গ্রেফতার

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক বগুড়া
প্রকাশিত: ০৬:৩৩ পিএম, ০২ ডিসেম্বর ২০২২

বগুড়ার শেরপুরে সরকারি খাদ্যবান্ধব কর্মসূচির ২৭৯ বস্তা চাল উদ্ধার করেছে পুলিশ। এ ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে সাবেক এক আওয়ামী লীগ নেতাকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

তার নাম গোলাম মোস্তফা (৫৫)। তিনি উপজেলার খানপুর ইউনিয়নের খানপুর গ্রামের আতাহার আলী মুন্সির ছেলে। বর্তমানে শহরের খন্দকারপাড়া এলাকার বাসিন্দা। তিনি পৌরসভার ৯ নম্বর ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সাবেক সভাপতি।

শুক্রবার (২ ডিসেম্বর) ভোরের দিকে উপজেলার খামারকান্দি ইউনিয়নের মাগুড়ারতাইর গ্রামের সড়ক থেকে চালগুলো উদ্ধার ও গোলাম মোস্তফাকে আটক করা হয়।

এ ঘটনায় শেরপুর থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) শাহাদত হোসেন বাদী হয়ে একটি মামলা করেছেন।

মামলায় খামারকান্দি ইউনিয়নের খাদ্যবান্ধব কর্মসূচির পরিবেশক (ডিলার) একই ইউনিয়নের ঝাজর গ্রামের হায়দার আলীর ছেলে শাহ জামাল স্বপন (৪৫), মাগুড়াতাইর গ্রামের আলিমুদ্দিনের ছেলে আব্দুর রহমান (৫০), গাড়ীদহ ইউনিয়নের চন্ডিজান গ্রামের রিয়াজ উদ্দিনের ছেলে আব্দুল গফুর বাবু (৩৮) ও শহরের হাটখোলা এলাকার হযরত আলীর ছেলে নজরুল ইসলামকে (৪২) অভিযুক্ত করা হয়েছে।

মামলা সূত্রে জানা যায়, খামারকান্দি ইউনিয়নের মাগুড়ার তাইর গ্রামে সরকারি খাদ্যবান্ধব কর্মসূচির চাল কালোবাজে বিক্রি হচ্ছে খবর পেয়ে টহল পুলিশের একটি দল সেখানে অভিযান চালায়। পরে সরকারি গুদামের সিলমোহরযুক্ত ২৭৯ বস্তা (৩০ কেজি) চালবোঝাই দুটি ভটভটি (ইঞ্জিনচালিত) আটক করা হয়। চালগুলো খাদ্যবান্ধব কর্মসূচির ডিলার শাহজামাল স্বপনের গোডাউন থেকে কালোবাজারে বিক্রির উদ্দেশ্যে শহরের হাটখোলা এলাকার টিসিবির ডিলার নজরুল ইসলামের গোডাউনে নিয়ে যাওয়া হচ্ছিল। এরপর সরকারি চালগুলো জব্দ করা হয়।

এ সময় গোলাম মোস্তফা চালগুলো নিজের দাবি করে ছেড়ে দেওয়ার দাবি করেন। তবে বৈধ কাগজপত্র দেখাতে ব্যর্থ হন। পরে তাকে আটক করা হয়।

জানতে চাইলে শেরপুর থানার এসআই শাহাদত হোসেন বলেন, মামলায় আরও চারজনকে অভিযুক্ত করা হয়েছে। কিন্তু পলাতক থাকায় তাদের গ্রেফতার করা সম্ভব হয়নি। তাদের ধরতে পুলিশি অভিযান অব্যাহত রয়েছে।

এসআর/এএসএম

পাঠকপ্রিয় অনলাইন নিউজ পোর্টাল জাগোনিউজ২৪.কমে লিখতে পারেন আপনিও। লেখার বিষয় ফিচার, ভ্রমণ, লাইফস্টাইল, ক্যারিয়ার, তথ্যপ্রযুক্তি, কৃষি ও প্রকৃতি। আজই আপনার লেখাটি পাঠিয়ে দিন [email protected] ঠিকানায়।