গ্রামীণ ব্যাংকের আদলে ১৪ দেশে ব্যাংক প্রতিষ্ঠার সিদ্ধান্ত


প্রকাশিত: ০৫:১২ এএম, ২৪ এপ্রিল ২০১৭

মধ্য ও পশ্চিম আফ্রিকার ১৪টি দেশে দরিদ্রদের জন্য বাংলাদেশের গ্রামীণ ব্যাংকের মতো ব্যাংক স্থাপনের সিদ্ধান্ত হয়েছে। এই ১৪ দেশে গ্রামীণ ব্যাংকের অনুকরণে একটি করে নতুন ব্যাংক প্রতিষ্ঠা করা হবে। এর মধ্যে ৮টি দেশ পশ্চিম আফ্রিকার ও ৬টি দেশ মধ্য আফ্রিকার।

গত ১৯ এপ্রিল জেনেভায় জাতিসংঘ দফতরে আরব গাল্ফ ফান্ডের (এগফান্ড) উপদেষ্টা কাউন্সিলের সভায় এই সিদ্ধান্ত হয়। ওই সভা সভাপতিত্ব করেন শান্তিতে নোবেলজয়ী বাংলাদেশের অধ্যাপক ড. মুহাম্মদ ইউনূস।

রোববার (২৩ এপ্রিল) এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানায় রাজধানী ঢাকার ইউনূস সেন্টার। এতে বলা হয়, আগামী পাঁচ বছরে এগফান্ডের অর্থায়নে এ ব্যাংকগুলো স্থাপিত হবে।

সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, এগফান্ডের ওই সভায় স্পেনের রানী সোফিয়া বিশেষ অতিথি হিসেবে অংশগ্রহণ করেন। আরও অংশ নেন ইসলামী উন্নয়ন ব্যাংকের সদ্য বিদায়ী প্রেসিডেন্ট ড. আহমেদ মোহাম্মদ আলী এবং এগফান্ড পুরস্কার কমিটির বোর্ড সদস্যবৃন্দ।

এতে আরও জানানো হয়, অধ্যাপক ড. ইউনূসের উৎসাহ ও সমর্থনে এগফান্ডের অর্থায়নে মধ্যপ্রাচ্য ও উত্তর আফ্রিকার ৯টি দেশে ইতোমধ্যে দরিদ্রদের জন্য ৯টি ব্যাংক প্রতিষ্ঠা করা হয়েছে। এ ব্যাংকগুলোর ঋণ আদায় হার প্রায় ৯৯ শতাংশ এবং ঋণগ্রহীতাদের বড় অংশই নারী। সামাজিক ব্যবসা হিসেবে প্রতিষ্ঠিত এ ব্যাংকগুলো পুরোপুরি বাংলাদেশের গ্রামীণ ব্যাংকের ক্ষুদ্রঋণ পদ্ধতি অনুসরণ করছে।

জেডএ/জেআই্এম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]