পর্যটন হোটেল-মোটেল থেকে লাভ ২ কোটি ৭৭ লাখ টাকা

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক
জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৮:৩৬ পিএম, ০৭ ফেব্রুয়ারি ২০১৯

বেসরকারি বিমান পরিবহন ও পর্যটনমন্ত্রী মাহবুব আলী বলেছেন, পর্যটন কর্পোরেশনের ২২টি হোটেল/মোটেল থেকে গত ২০১৭-২০১৮ অর্থবছরে ৫০ কোটি ২৯ লাখ ৩৭ হাজার টাকা আয় হয়েছে। এর বিপরীতে খরচ হয়েছে ৪৭ কোটি ৫২ লাখ ৩৫ হাজার টাকা। নিট মুনাফা হয়েছে ২ কোটি ৭৭ লাখ ২ হাজার টাকা।

বৃহস্পতিবার জাতীয় সংসদে সাংসদ দিদারুল আলমের (চট্টগ্রাম-৪) লিখিত প্রশ্নের জবাবে একথা বলেন তিনি।

মন্ত্রী বলেন, ‘জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান রাষ্ট্রপতি অধ্যাদেশ ১৪৩ বলে বাংলাদেশ পর্যটন কর্পোরেশন প্রতিষ্ঠা করেন। ১৯৭৩ সাল থেকে চালু হওয়া বাংলাদেশ পর্যটন কর্পোরেশন হাঁটি হাঁটি পা পা করে ৪৬ বছরে পদার্পণ করেছে।’

তিনি বলেন, ‘পর্যটন কর্পোরেশনের প্রতি বর্তমান সরকারের বিশেষ সুনজর থাকায় পর্যটনশিল্পের বিকাশ ঘটেছে। তারই ধারাবাহিকতায় বাংলাদেশ পর্যটন কর্পোরেশনের নিয়ন্ত্রণাধীন হোটেল/মোটেল সংখ্যা এখন ২২টি।’

মন্ত্রীর দেয়া তথ্যমতে, এসব হোটেল-মোটেলের মধ্যে রয়েছে ঢাকায় হোটেল অবকাশ, হোটেল মধুমতি (টুঙ্গীপাড়া, গোপালগঞ্জ); হোটেল সৈকত, চট্টগ্রাম; পর্যটন হলিডে কমপ্লেক্স, রাঙ্গামাটি; পর্যটন মোটেল প্রবাল, কক্সবাজার; পর্যটন মোটেল লাবনী, কক্সবাজার; হোটেল শৈবাল, কক্সবাজার; পর্যটন মোটেল, খাগড়াছড়ি; পর্যটন মোটেল, বান্দরবান; হোটেল নেটং, টেকনাফ; পর্যটন মোটেল, বগুড়া; পর্যটন মোটেল, রাজশাহী; পর্যটন মোটেল, দিনাজপুর; পর্যটন মোটেল, রংপুর; পর্যটন হোটেল পশুর, মংলা, বাগেরহাট; পর্যটন মোটেল, বেনাপোল, যশোর; পর্যটন কমপ্লেক্স, সাগরদাঁড়ি, যশোর; মুজিবনগর পর্যটন মোটেল, মেহেরপুর; হলিডে হোমস, কুয়াকাটা, পটুয়াখাল; পর্যটন মোটেল, সিলেট ও পর্যটন মোটেল জাফলং। এ ছাড়া বাংলাদেশ পর্যটন কর্পোরেশনের নিয়ন্ত্রণাধীন ১৩টি রেস্তোরাঁ ও বার রয়েছে।

এইচএস/এসআর/এমকেএইচ