প্রশ্নফাঁসের ন্যূনতম প্রমাণ খুঁজতে কমিটি

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০২:১৪ পিএম, ০৪ ফেব্রুয়ারি ২০১৮
ফাইল ছবি

চলতি বছরের এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষার ফাঁস হওয়া প্রশ্নের সঙ্গে যদি আসল প্রশ্নপত্র মিলে যায় সেক্ষেত্রে পরীক্ষা বাতিল করা হবে বলে আগেই জানিয়েছিল শিক্ষামন্ত্রণালয়।

তারপর প্রথম দু’টি পরীক্ষাতেই ফেসবুকে প্রশ্ন ফাঁস হয়ে যায় বলে গণমাধ্যমগুলোতে খবর রয়েছে। তবে মন্ত্রণালয় তা মানতে নারাজ।

তবে আসলেও প্রশ্ন ফাঁস হচ্ছে কি না এবার তা দেখতে একটি কমিটি গঠনের সিদ্ধান্ত নিয়েছে নুরুল ইসলাম নাহিদ নেতৃত্বাধীন শিক্ষা মন্ত্রণালয়। এই প্রশ্ন ফাঁসের বিষয়টি নিয়ে বেশ সমালোচনায় পড়তে হয়েছে শিক্ষামন্ত্রী নাহিদকে। ট্রলও হয়েছে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে।

প্রশ্ন ফাঁসের অভিযোগ অনুসন্ধানে যে কমিটি গঠন করার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে সেই কমিটি মূলত খতিয়ে দেখবে প্রশ্নপত্র ফাঁস হয়েছে কি না। যাচাই-বাছাইয়ের পর এই কমিটি যদি ফাঁস হওয়া প্রশ্নের সঙ্গে আসল প্রশ্নপত্রের মিল পায় তবেই আগের দেয়া কথা মতো পরীক্ষা বাতিল করা হবে।

একজন সচিবের সমন্বয়ে মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদফতর (মাউশি) ও বোর্ড কর্মকর্তাদের নিয়ে এ কমিটি গঠন করা হবে।

বিষয়টি নিশ্চিত করে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা বিভাগের সচিব সোহরাব হোসেন জাগো নিউজকে বলেন, আমরা সব চেষ্টা করছি। তারপরও নাভাবে বিতর্ক সৃষ্টি হচ্ছে। যেহেতু আমরাও কথা দিয়েছি প্রশ্ন ফাঁস হলে পরীক্ষা বাতিল করা হবে, তাই কমটি গঠন করা হচ্ছে। সেই কমিটি প্রশ্নফাঁসের ন্যূনতম প্রমাণ পেলেও পরীক্ষা বাতিল করা হবে।

আজ রোববার বিকেল ৩টায় কমিটি গঠনের লক্ষ্যে একটি সভা ডাকা হয়েছে। সেখানে নিরাপত্তাবাহিনীর সদস্যরাসহ পরীক্ষা সংশ্লিষ্ট সকলকে ডাকা হয়েছে।

এমএইচএম/এনএফ/এমএস

আপনার মতামত লিখুন :