গ্রন্থমেলায় কথাসাহিত্যিক জয়দীপ দে’র দুটি গ্রন্থ

জাগো নিউজ ডেস্ক
জাগো নিউজ ডেস্ক জাগো নিউজ ডেস্ক
প্রকাশিত: ০১:১৮ পিএম, ০৮ ফেব্রুয়ারি ২০১৯

একুশে গ্রন্থমেলায় প্রকাশিত কথাসাহিত্যিক জয়দীপ দে’র দুটি গ্রন্থ হয়েছে। একটি উপন্যাস ও অপরটি ভ্রমণকাহিনী। তার দ্বিতীয় উপন্যাস ‘গহন পথে’ প্রকাশ করেছে দেশ পাবলিকেশন্স। পাওয়া যাবে ৩৮৮ও ৩৮৯ নং স্টলে।

‘গহন পথে’ উপন্যাসটি বাংলাদেশের শিক্ষা ব্যবস্থার উপর লেখা। উপন্যাসটির শুরুতে সুজন নামের একটি ছেলের সাথে পাঠকের পরিচয় হয়। স্কুলে যেতে যেতে তার বাবা বারবার বলছিল, ‘বাবু ভালা করিয়া পড়বায়। মাস্টারনি তারার কথা হুনবায়। তোমারে ফার্স্ট অয়া লাগব। দুই নম্বরোর কুনু দাম নাই দুনিয়াত’। সেই থেকে কেবল ফার্স্ট হওয়ার যুদ্ধ। কখনো নিয়মের ভেতরে, কখনো বা বাইরে। একসময় সুজন ক্লান্ত হয়ে শুয়ে পড়ে রেল লাইনে। যে শিক্ষা মানুষকে বিকশিত করার কথা, সেই শিক্ষা হচ্ছে মৃত্যুর কারণ। এভাবে প্রতিবছর কত প্রাণ ঝরে যায় তার কোন হিসাব নেই কোথাও। এ মৃত্যুযাত্রার সুলুক সন্ধানে শিক্ষার গহন পথে এবারের যাত্রা। ৩০ হাজার শব্দের এই উপন্যাসে বাংলাদেশের শিক্ষা ব্যবস্থার বিভিন্ন সংকট এবং সম্ভাবনার দিকে আলোকপাত করা হয়েছে। প্রবাসে বাংলাদেশী তরুণরা কি কঠিন সংগ্রামের মধ্যে টিকে আছে তারও বর্ণনা মিলবে এখানে।

ভ্রমণকাহিনী ‘মাদ্রাজের চিঠি’ প্রকাশ করেছে অনিন্দ্য প্রকাশনী। পাওয়া যাবে ৩ নং প্যাভিলিয়নে। লেখক দু’মাস অবস্থান করেছিলেন দক্ষিণ ভারতে। ছুটেছেন চেন্নাই থেকে কন্যাকুমারী। সে অভিজ্ঞতার আলোকে এই বইটি লেখা। তবে এটা নিছক ভ্রমণকাহিনী নয়। ঘোরাঘুরির বর্ণনা আছে বটে, তবে লক্ষ কেবল তা নয়। একটা সমাজকে বহুতল থেকে দেখার চেষ্টা চলেছে এখানে। একটা শহরের প্রাণভ্রোমরাটাকে খুঁজে ফেরার প্রয়াস। গ্রন্থ দু’টির প্রচ্ছদ করেছেন শিল্পী রাজীব দত্ত। বই দুইটির দাম রাখা হয়েছে ২০০ টাকা।

এএ/এমএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]