নির্বাচন নিয়ে আমার কোনো ব্যস্ততা নেই : ন্যানসি

বিনোদন প্রতিবেদক
বিনোদন প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৭:২৬ পিএম, ১৩ সেপ্টেম্বর ২০১৭ | আপডেট: ০৭:৩১ পিএম, ১৩ সেপ্টেম্বর ২০১৭
নির্বাচন নিয়ে আমার কোনো ব্যস্ততা নেই : ন্যানসি

নাজমুন মুনীরা ন্যানসি। দেশের বর্তমান প্রজন্মের শীর্ষ গায়িকা। তার গান মানেই হৃদয় দোলা দেয়া সব অনুভূতিদের নাচন। কিন্নরকণ্ঠী এই গায়িকা চলচ্চিত্র এবং অডিও; দুই ভুবনেই সমানতালে জনপ্রিয়তা নিয়ে গান গেয়ে চলছেন।

তবে তার আছে আরও একটি পরিচয়। তারকাখ্যাতির বাইরে গিয়ে একজন সাধারণ মানুষ হিসেবে মানুষের পাশে দাঁড়াতে চেষ্টা করেন তিনি। কাছে টেনে নেন বঞ্চিতদের। সাধ্যমতো চেষ্টা করেন সাহায্য-সহানুভূতির হাত বাড়িয়ে দিতে। তবে সবই করেন একান্ত নিজের ভালো লাগা আর মানবিকতার টানে। তাই প্রচারের আড়ালে রাখেন সমাজসেবামূলক কাজগুলোকে।

কিন্তু সম্প্রতি গুজব ছড়ানো হচ্ছে আসন্ন জাতীয় সংসদ নির্বাচনে এমপি পদে বিএনপির হয়ে মনোনয়ন চাইছেন ন্যানসি। জনমত তৈরি করতে তিনি উঠেপড়ে লেগেছেন। ঘন ঘন যাচ্ছেন নেত্রকোনায় নিজের এলাকাতে। জনগণের দৃষ্টি আকর্ষণ করতে নানারকম প্রচার-প্রচারণা ও সমাজসেবায় অংশ নিচ্ছেন।

এইসব গুজব সম্পর্কে জানতে চাইলে বিরক্তি প্রকাশ করলেন ন্যানসি। তিনি জাগো নিউজকে বলেন, ‘গেল সপ্তাহে কিছু মনগড়া সংবাদ চোখে পড়েছে আমার। একটি জাতীয় দৈনিকসহ কিছু অনলাইনে খবর প্রকাশ হয়েছে আমি বিএনপির হয়ে নির্বাচনে আসার জোর চেষ্টা তদবির চালাচ্ছি। কেউ কেউ লিখেছেন দলটির হাই কমান্ড থেকে আমার সঙ্গে যোগোযোগ করা হয়েছে, আমিও যোগাযোগ করে যাচ্ছি। একেবারেই ভূয়া আর বানোয়াট কিচ্ছা কাহিনী সব। আমার সঙ্গে যোগাযোগ না করেই গণমাধ্যমে আমাকে নিয়ে এমন অবান্তর কথাবার্তা ছড়ানোর সংবাদ কাম্য নয়।’

এই গায়িকা আরও বলেন, ‘এটা সত্যি আমি রাজনীতির সঙ্গে জড়িত। আমি বিএনপির আদর্শের রাজনীতি লালন করি দীর্ঘদিন ধরেই। কিন্তু জাতীয় নির্বাচনে অংশ নেয়ার কোনো পরিকল্পনা এখন পর্যন্ত নেই আমার। নির্বাচনের সময় ঘনিয়ে আসলে অনেক কথাই শোনা যায়। এলাকার কেউ কেউ বলছেন, আমাদের নেত্রী বেগম খালেদা জিয়া আমাকে নির্বাচনে চান। কিন্তু তার কোনো সত্যতা আমি পাইনি। নেত্রী যদি আমাকে সত্যি চাইতেন তবে তিনি তার প্রতিনিধি দিয়ে যোগাযোগ করতেন। কারো উস্কানি বা উৎসাহে আমি রাজনীতি করি না। আর দল যাকে মনোনয়ন দিতে চায় তার বাইরে গিয়ে কিছু ভাবারও ইচ্ছে আমার নেই। আমি চাই বিএনপি দেশের জন্য ভালো কাজ করুক। এটা যে কোনোভাবে, যে কারো মাধ্যমে হতে পারে।’

আপনি আজকাল এলাকার মানুষের সঙ্গে যোগাযোগ বাড়াচ্ছেন। ঈদে নির্বাচনী কাজে বাড়িতে গিয়েছিলেন বলেও গুঞ্জন চলছে। এর সত্যতা নেই? এমন প্রশ্নের জবাবে ন্যানসি বলেন, ‘একভাগও সত্য নয়। আমি এবারের কোরবানি ঈদে নেত্রকোনায় গিয়েছি মায়ের টানে এবং ভাইয়ের জন্য। অনেকদিন পর আমার ভাই ঈদ করতে নেত্রকোনায় এসেছিলো। মা নেই, তাই ভাইকে সঙ্গ দিতে, তার সঙ্গে ঈদের আনন্দ ভাগ করতেই নেত্রকোনায় যাওয়া। এটিকে কেউ কেউ রাজনীতির সঙ্গে গুলিয়ে ফেলেছেন।’

ন্যানসি বলেন, ‘আমি নিজের তাগিদেেই মানুষের পাশে দাঁড়ানোর চেষ্টা করি। কেউ সাহায্যের জন্য আসলে সাধ্যমতো তার পাশে থাকার চেষ্টা করি। আল্লাহ আমাকে অনেক দিয়েছেন। তার কৃতজ্ঞতা জানাতেই আমি এই কাজগুলো দায়িত্ব মনে করি। এখানে রাজনৈতিক কোনো ভাবনা নেই। যদি থাকতো তবে কাউকে কিছু দান করার আগে গণমাধ্যমকর্মীদের ডেকে দেখাতাম। বলতাম নিউজ করে দিন। আল্লাহর রহমতে অনেক ভাই-বন্ধু সাংবাদিকরা আমাকে পছন্দ করেন। কিন্তু আমি এমনটি করিনি। নিরবে নিভৃতে নিজের মনের সন্তুষ্টির জন্য কাজ করে যাচ্ছি। করে যাবো।

তাছাড়া রাজনৈতিক উদ্দেশ্যে সমাজসেবা করলে আমি ময়মনসিংহে করতাম না। নিজের এলাকা নেত্রকোনাতে থাকতাম। সেখানে জনসংযোগ বাড়াতাম। কিন্তু আমি ময়মনসিংহে স্বামীর বাড়িতে আছি নিয়মিত। এখানকার মানুষের জন্যই নানা কিছু করার চেষ্টা করি। যেমন গেল রোজায় টানা ত্রিশ দিন আমি স্থানীয় মসজিদে ইফতার দিয়েছি।’

গান বাজনার কী খবর? উত্তরে ন্যানসি বলেন, ‘গানের জায়গাটা দিনদিন নোংরামিতে ভরে যাচ্ছে। অডিও বলতে তো আর কিছু পাওয়াই যাচ্ছে না। সব এখন ভিডিওতে। যে যার মতো করে কাড়ি কাড়ি টাকা ঢালছেন মিউজিক ভিডিওতে। গানের সুর তালের চেয়ে এখন ভিডিওর মডেল, গল্প আর লোকেশন নিয়েই মাতামাতি। আর চলছে প্রচারের চাকচিক্য। জানিনা এর শেষ কোথায়। সিনেমায় গানের একটা বিরাট সম্ভাবনা থাকে। কিন্তু সিনেমার অবস্থাও ভালো নয়। সবকিছু মিলিয়ে গানের মানুষদের বেশ মন্দ সময়ই পার করতে হচ্ছে বলে মনে করি আমি। তবে তার ভিড়েও গান করে যেতে হবে আমাদের। করছিও। কিছু সিঙ্গেল ও দ্বৈত গানে সম্প্রতি কণ্ঠ দিয়েছি। কিছু চলচ্চিত্রেও গান করছি। চলে যাচ্ছে এভাবেই।’

প্রসঙ্গত, ন্যানসির পাশাপাশি জনপ্রিয় চিত্রনায়িকা ফরিদা আক্তার ববিতা, চিত্রনায়ক ইলিয়াস কাঞ্চন, প্রখ্যাত কণ্ঠশিল্পী এন্ড্রু কিশোর, জনপ্রিয় ব্যান্ডশিল্পী জেমসও বিএনপির হয়ে নির্বাচন করবেন বলে খবর প্রকাশ করা হয়েছে। ববিতাকে ঢাকার আশপাশের যে কোনো একটি আসন থেকে মনোনয়নের প্রস্তাব দেওয়া হয়েছে। বিএনপি চেয়ারপারসনের এক উপদেষ্টা এ নিয়ে জোর চেষ্টা চালাচ্ছেন। চিত্রনায়ক ইলিয়াস কাঞ্চনকে ঢাকা মহানগরের একটি আসন থেকে মনোনয়নের জন্য আলাপ-আলোচনা চলছে। কণ্ঠশিল্পী এন্ড্রু কিশোরকে রাজশাহীর (বাঘা-চারঘাট) আসন থেকে মনোনয়ন দেওয়া হতে পারে বলে গুঞ্জন শোনা যাচ্ছে। জেমসকে নওগাঁ সদর আসনে মনোনয়ন দেওয়ার ব্যাপারে গুঞ্জন রয়েছে।

বিএনপির রাজনীতির সঙ্গে যেসব তারকা রয়েছেন, তাদের মধ্যে এবার দলের মনোনয়ন প্রত্যাশীরা হলেন বিশিষ্ট গীতিকার-সুরকার গাজী মাজহারুল আনোয়ার, গীতিকার-সুরকার মনিরুজ্জামান মনির, চিত্রনায়ক আশরাফউদ্দিন উজ্জ্বল, চিত্রনায়ক হেলাল খান, অমিত হাসান, কণ্ঠশিল্পী বেবী নাজনীন, মনির খান, কনকচাঁপা, রিজিয়া পারভীন, হাসান চৌধুরী, অভিনেতা বাবুল আহমেদ, কণ্ঠশিল্পী নাজনিন মুনিরা ন্যান্সি, টিভি উপস্থাপিকা কাজী জেসিন, জাতীয় ফুটবল দলের সাবেক অধিনায়ক আমিনুল ইসলাম, চিত্রনায়িকা শাহরিয়ার ইসলাম শায়লা প্রমুখ।

তবে এইসব তারকার অধিকাংশের সঙ্গেই আলাপ করে তাদের কণ্ঠে মিথ্যে সংবাদের বিরুদ্ধে বিরক্তির সুর পাওয়া গেছে।

এলএ/আরআইপি

বিনোদন, লাইফস্টাইল, তথ্যপ্রযুক্তি, ভ্রমণ, তারুণ্য, ক্যাম্পাস নিয়ে লিখতে পারেন আপনিও - jagofeature@gmail.com