ভালো থেকো ছবির গল্প দর্শকের মন ভরাবে : তানহা

বিনোদন প্রতিবেদক
বিনোদন প্রতিবেদক বিনোদন প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৪:৫১ পিএম, ০৮ ফেব্রুয়ারি ২০১৮

ঢাকাই ছবির উঠতি নায়িকা তানহা তাসনিয়া। ‘ভোলা তো যায় না তারে’ ছবিতে চিত্রনায়ক নিরবের বিপরীতে অভিষেক হয় তার। এরপর ‘ধূমকেতু’ ছবি দিয়ে হালের কিং শাকিব খানের সাথে অভিনয় করে নিজের অবস্থান পোক্ত করার চেষ্টা করেন।
আগামীকাল শুক্রবার, ৯ ফেব্রুয়ারি মুক্তি পেতে যাচ্ছে তার অভিনীত তৃতীয় ছবি ‘ভালো থেকো’।

এতে তার বিপরীতে রয়েছেন চিত্রনায়ক আরিফিন শুভ ও আসিফ ইমরোজ। ছবিটিতে অভিনয়ের অভিজ্ঞতা ও সমসাময়িক বিষয় নিয়ে জাগো নিউজের সঙ্গে কথা বলেন তানহা তাসনিয়া। তাকে নিয়ে লিখেছেন ইমরুল নূর

জাগো নিউজ : নতুন ছবি ‘ভালো থেকো’ মুক্তি পেতে যাচ্ছে। অনুভূতি কেমন?
তানহা : এই ছবিটা নিয়ে আমি অনেকটা নার্ভাস। এমনিতেই ছবি মুক্তির তারিখ বেশ কয়েকবার নড়চড় হয়েছে। আবার সামনে খালেদা জিয়ার রায় নিয়ে রাজনীতি বিষয়ক একটা ঝামেলা হবে দেখতে পাচ্ছি। এমন একটা সময়ে ছবিটা মুক্তি পাচ্ছে, বুঝতে পারছি না কী যে হয়! আর দর্শকরাও ছবিটাকে কিভাবে নেয় সেই টেনশনও কাজ করছে।

jagonews24

জাগো নিউজ : এ ছবিতে আপনার চরিত্রটা কেমন ?
তানহা : ব্যক্তি জীবনে তানহা যেমন এ ছবির চরিত্রটাও ঠিক তেমনই। পরিবারের খুব আদরের একটা মেয়ে তবে অনেকটা রাগী ও জেদি। নিজের সাথে মিল রয়েছে বলেই এই চরিত্রে কাজ করতে বেশি আগ্রহ পেয়েছি। তাছাড়া ভালো গল্প ও চরিত্র কেউই মিস করতে চায় না। চরিত্রগত জায়গা থেকে এক্সপেরিমেন্ট করার খুব ইচ্ছে ছিলো। সেই সুযোগ এই ছবিতে পেয়েছি।

জাগো নিউজ : ‘ভালো থেকো’ ছবিটি নিয়ে কেমন প্রত্যাশা?
তানহা : আমার তো মনেই হয় ভালো একটি কাজ হতে চলেছে। কারণ আমার খুব ইচ্ছে ছিলো জাকির হোসেন রাজু স্যার ও আরিফিন শুভর সঙ্গে কাজ করার। খুব ইচ্ছে ছিল বড় একটি প্ল্যাটফর্মে কাজ করার। আমার বিগত দুটি ছবিতে নিজেকে প্রমাণ করার তেমন কোনো সুযোগ পাইনি। এ ছবিতে কিছুটা হলেও পেয়েছি। এ ছবিতে নিজের সেরাটা দেওয়ার চেষ্টা করেছি। সো আশা তো করতেই পারি ভালো কিছু হবে।

জাগো নিউজ : কয়েকবার ছবিটির মুক্তির তারিখ পরিবর্তন হয়েছে। এতে করে দর্শকদের আগ্রহের জায়গায় ছবিটি নিয়ে কোনো কমতি থাকবে বলে কি মনে হয়?
তানহা : তারিখ পরিবর্তনের বিষয়গুলো আসলে অনিচ্ছাকৃতভাবেই হয়েছে। বিভিন্ন কারণ ছিল। কারণ একজন প্রযোজক সিনেমায় যে টাকা লগ্নি করে সিনেমাটি নির্মাণ করেন, তিনি তো সে টাকা ব্যাক চাইবেন। অ্যাট লিস্ট যদি পুঁজিটা ফেরত আসে, তাহলে তারা সন্তুষ্ট হয়ে যায়। এ ধরনের কিছু কারণেই বেশ কয়েকবার ছবিটি মুক্তির তারিখ চেঞ্জ করা হয়েছে। দর্শক এ কারণে সাময়িক কনফিউজ হয়ে গিয়েছিল। কিন্তু এখন আবার মনে হচ্ছে কনফিউশনের জায়গাটা ঠিক হয়ে গিয়েছে। কারণ প্রচুর রেসপন্স পাচ্ছি।

জাগো নিউজ : ছবিটির জন্য প্রচারের ক্যাম্পেইনে আপনাদের তেমন সরব দেখা যাচ্ছে না। কারণটা কী?
তানহা : আমরা তো আমাদের মতো করে প্রচার করছিই। ক্যাম্পেইনটা মার্কেটিং টিমে যারা রয়েছেন, তাদের দিক থেকে ডিসাইড করা রয়েছে, কী করতে হবে। আমারা টিভি চ্যানেল, রেডিও, পত্রিকা, এফএম স্টেশনে গিয়ে ছবিটি নিয়ে কথা বলছি। সোশ্যাল মিডিয়াতে তো চলছেই। আমরা চেষ্টা করে যাচ্ছি, যাতে সব শ্রেণির মানুষদের কাছে যাতে খবরটি পৌঁছায়। তবে আমার মনে হয়, আমাদের দেশের সিনেমার মার্কেটিং সিস্টেমটা আরও ভালো করা উচিত।

jagonews24

জাগো নিউজ : এ ছবিতে আপনার বিপরীতে দুজন নায়ক। সহশিল্পী হিসেবে শুভ ও রোজ কেমন?
তানহা : শুভ এ সময়ের একজন জনপ্রিয় তারকা। তার সাথে কাজ করতে পেরে অনেক ভালো লেগেছে। আর রোজ ও বেশ ভালো, দারুণ অভিনয় করে। এক কথায় হি ইজ টু গুড। তার আরও ভালো ছবিতে কাজ করা উচিত।

জাগো নিউজ : ‘ভালো থেকো’ দেখার পর দর্শক কতটা ভালো থাকতে পারবেন?
তানহা : আমি তো আশা করব, দর্শক ‘ভালো থেকো’ দেখার পর ভালোই থাকবেন। কারণ দর্শকরা ভালো গল্পের ছবিগুলোকে সাদরে গ্রহণ করে। ‘ভালো থেকো’ দেশীয় প্রেক্ষাপটের গল্পে পারিবারিক সেন্টিমেন্টের একটা ছবি। ভালো থেকো ছবির গল্প দর্শকের মন ভরাবে। আমার মনে হয় সেদিক থেকে ভালো কিছু হতে যাচ্ছে।

জাগো নিউজ : এখনকার উঠতি শিল্পীসহ প্রায় অনেকেই চলচ্চিত্রের নোংরা রাজনীতির শিকার। বিষয়টিকে কিভাবে দেখছেন?
তানহা : আমি আসলে রাজনীতি বুঝি না। আমরা যারা চলচ্চিত্রে নতুন কাজ করছি তারা একটু বেশিই এ নোংরা রাজনীতির শিকার হচ্ছি। যার কারণে এখনো ঠিকমত দাঁড়াতে পারছি না। এখন দেশে চলচ্চিত্রই নির্মাণ হচ্ছে না। যেগুলো হচ্ছে তাদের মান নিয়েও নানা প্রশ্ন আসে। এভাবে ইন্ডাস্ট্রিতে টিকে থাকা নিয়ে সংশয় কাজ করে। তবুও প্রত্যাশা করি শিগগিরই ভালো সময় আসবে।

এল/আরআইপি

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]