টেলিপ্যাব থেকে পদত্যাগ করছেন ইরেশ যাকের

বিনোদন প্রতিবেদক
বিনোদন প্রতিবেদক বিনোদন প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ১১:৩৪ পিএম, ১৬ মে ২০২০

আন্তঃসংগঠনের বেশ কিছু সিদ্ধান্ত নিয়ে টেলিভিশন প্রোগ্রাম প্রডিউসারস অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশের (টেলিপ্যাব) সদস্যদের মধ্যে অসন্তোষ চলছে। সেই জের ধরে সংগঠনটির সভাপতির পদ থেকে অব্যাহতি নিচ্ছেন অভিনেতা-প্রযোজক ইরেশ যাকের।

শনিবার বিকেলে সংগঠন বরাবর এক চিঠি পাঠিয়ে পদত্যাগের সিদ্ধান্তের কথা জানিয়েছেন এ অভিনেতা। এ বিষয়টি জাগো নিউজকে নিশ্চিত করেছেন তিনি।

জানা গেছে, করোনাভাইরাস সংক্রমণ রুখতে প্রায় দেড় মাস ধরে নাটকের শুটিং বন্ধ রাখা হয়েছে। কিন্তু ঈদকে সামনে রেখে শুটিংয়ের অনুমতি চান অনেক প্রযোজক, পরিচালক ও শিল্পীরা। এ নিয়ে পক্ষ বিপক্ষে আলোচনা তৈরি হয়েছে।

যার ফলে রোববার থেকে শর্তসাপেক্ষে শুটিং চালু করা, অনুমতি ছাড়া লকডাউনে কতিপয় শিল্পীদের শুটিং করার কারণ দর্শানোর নোটিস পাঠানোসহ আন্তঃসংগঠনের বেশ কয়েকটি সিদ্ধান্ত নিয়ে বিতর্ক দেখা দিয়েছে।

টিভি নাটকের ১৯ সংগঠনের সমন্বয়ে গঠিত আন্তঃসংগঠনের কিছু সিদ্ধান্তে অনাস্থা জানিয়ে অনেকে অভিযোগ করছেন, সদস্যদের কথা চিন্তা না করে নেতারা নিজেদের স্বার্থেই এসব সিদ্ধান্ত গ্রহণ করছেন। যা মেনে নেয়া যায় না।

এসব সিদ্ধান্তের জটিলতার মুখেই নিজের পদ থেকে সরে যাবার কথা ভেবেছেন ইরেশ যাকের। তবে এ নিয়ে কারো উপর দোষারোপ করেননি তিনি।

ইরেশ তার পাঠানো চিঠিতে আশা করেছেন, তার পদে গ্রহণযোগ্য কোনো নেতা আসবেন। তিনি সংগঠনের স্বার্থে সঠিক সিদ্ধান্ত নেবেন যা সদস্যদের কাছে গ্রহণযোগ্যতা পাবে।

টেলিপ্যাবে পাঠানো চিঠিতে তিনি বলেন, নেতাদের প্রশ্নবিদ্ধ হওয়া চলবে না। নেতাদের সিদ্ধান্ত সদস্যরা গ্রহণ না করলে এটা নেতাদেরই ব্যর্থতা। আমাদের সিদ্ধান্ত নিয়ে সদস্যদের তরফ থেকে প্রশ্ন আসছে। বিশৃঙ্খলাও ঘটছে।

আমাদের জায়গা থেকে যথাসাধ্য চেষ্টা করা হলেও সদস্যরা তা গ্রহণ করছে না। সেকারণেই আমি পদটি ছাড়তে চাই।'

তবে পদত্যাগের বিষয়ে সংগঠনের পক্ষ থেকে কোনো প্রতিক্রিয়া এখনো ইরেশকে জানানো হয়নি বলে নিশ্চিত করেন এই অভিনেতা।

এলএ/এমএবি/এমএসএইচ

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]