সৃষ্টিকর্তার দিকেই তাকিয়ে আছি : নোবেল

বিনোদন প্রতিবেদক
বিনোদন প্রতিবেদক বিনোদন প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ১২:৪৭ পিএম, ০৩ জুন ২০২০

বাংলাদশের জনপ্রিয় মডেল ও অভিনেতা আদিল হোসেন নোবেল। তবে শোবিজে নোবেল বলেই জানেন সবাই। এখন পর্যন্ত তিনিই দেশের সবচেয়ে দামি এবং নামী মডেল। দেশীয় মডেলিং জগতে নিজের একচ্ছত্র রাজত্ব এখনো টিকিয়ে রেখেছেন। দেশের এ অবস্থায় বর্তমানে তিনি অবস্থান করছেন নিজ গৃহে।

তার কর্মব্যস্ততা সমসাময়িক বিষয় নিয়ে কথা বলেছেন জাগো নিউজের সাথে।লিখেছেন অরণ্য শোয়েব

জাগো নিউজ : ঈদ কেমন কাটলো?
নোবেল : বাসায় কেটেছে। পরিবারের সাথে সারাদিন ঘরেই ছিলাম। বাইরে যাওয়ার কোনো প্ল্যান ছিলো না। প্রতিবারের ঈদের চেয়ে একদমই আলাদা ঈদ করলাম এবার। তারপরও ভালো আছি সুস্থ্য আছি এটাই অনেক কিছু এই মুহূর্তে।

জাগো নিউজ : দীর্ঘ অবসর সময়টা যাচ্ছে কিভাবে ?
নোবেল : মার্চ মাসের শেষের দিক থেকেই বাসায় আছি। মাঝে দু একবার বের হয়েছিলাম কেনাকাটার জন্য।পরিবারকে সময় দিচ্ছি। মাঝেমধ্যে বাসার ছাদে হাঁটাহাঁটি করছি। আর আমি একটি টেলিকমিনিকেশন কোম্পানিতে কাজ করি। সেক্ষেত্রে বাসায় থাকলে অফিসের কাজ নিয়ে ব্যাস্ত থাকা হয়।

অফিসের কাজ বাসায় বসে করতে হচ্ছে। ফুল অফিস এখন বাসার সাথে কানেক্ট। দিন রাত এক করে কাজ করতে হচ্ছে। পাশাপাশি বন্ধু আত্মীয়স্বজনদের খোঁজ নিচ্ছি।

জাগো নিউজ : অনেকদিন ধরেই পর্দায় নেই কেন?
নোবেল : আসলে ব্যস্ততা খুব বেশি থাকার কারণে শোবিজে খুব একটা কাজ করা হচ্ছে না। তবে আমি সবসময়ই একটু বেছে কাজ করি। কাজ করলেও সেটিই করবো যেটি আমার মনের সাথে মিলবে। কাজ করা না করা নিয়ে আমার কোনো হতাশা নেই। বেছে কাজ করতে গেলে কাজ কমই হয়।

সম্প্রতি একটি টিভিসির কথা হয়েছিল মাঝে। কিন্তু শুনেছি পরিচালক এবং গল্প বদলানো হয়েছে। আমি না করেছি। আর একটি টিভিসির শুটিং শুরু হওয়ার কথা ছিল। করোনার প্রকোপের জন্য বন্ধ আছে।

জাগো নিউজ : সকল স্তরের শুটিং প্রস্তুতি চলছে। এই পরিস্থিতে আপনি শুটিং করবেন ?
নোবেল : না। এই মুহূর্তে করবো না। আমার যে কাজগুলো করার কথা রয়েছে সেগুলোও এখন পিছিয়ে দেবো। আর পরিবেশ স্বাভাবিক হলে তো অফিসের কাজ বেড়ে যাবে। সেক্ষেত্রে একটু সময় নিয়ে শোবিজে কাজ করবো।

জাগো নিউজ : করোনাতে আপনার উপলদ্ধি কি হলো?
নোবেল : আমার উপলদ্ধি আসলে একটু ভিন্ন। আমার কাছে মনে হয়েছে পুরো পৃথিবী একটি অস্থিরতার মধ্যে দিয়ে যাচ্ছিলো। চলার ধারা বদলে যাচ্ছিলো। কিছুতেই থামতে চচ্ছিলো না কেউ। এটা আমার ব্যক্তিগত মত। সবাই আমরা বাউন্ডারির বাইরে দিয়ে যাচ্ছিলাম। সেটি এখন কিছুটা সংযত হয়েছে এবং অস্থিরতা বিষয়টি কাটছে।

এই পরিস্থিতি স্বাভাবিক হওয়ার অবস্থা এখনো বুঝতে পারছি না। তাই সঠিকভাবে নির্মূল কবে হবে সেটি নিশ্চিত নয়। সৃষ্টিকর্তার দিকে তাকিয়ে আছি।

জাগো নিউজ : ভক্তদের জন্য কিছু বলতে চান ?
নোবেল : এখন তো একটাই কথা বলতে হবে নিজেকে সেভ রাখার চেষ্টা করুন। পরিষ্কার পরিছন্ন রাখতে হবে সবসময়। সকল স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে হবে। স্বাস্থ্য সংস্থাগুলো যেসব বিধি ও আমাদের সরকারের স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে হবে।

এলএ/পিআর

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]