রমজানে অসহায়দের ১০ লাখ টাকার সহায়তা দেবেন নায়িকা শাবানা!

বিনোদন প্রতিবেদক
বিনোদন প্রতিবেদক বিনোদন প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৩:৩৯ পিএম, ১০ এপ্রিল ২০২১

ঢাকাই সিনেমার কিংবদন্তি নাম শাবানা। সাদাকালো যুগে তার চলচ্চিত্রে আগমন। উর্দু, হিন্দি, বাংলা- অভিনয় করেছেন তিন ভাষার চলচ্চিত্রেই৷ নিজেকে তিনি প্রতিষ্ঠিত করেছেন দেশের সবচেয়ে জনপ্রিয় অভিনেত্রী হিসেবে৷

অনেক বছর ধরেই সিনেমায় নেই তিনি৷ আমেরিকায় সপরিবারে স্থায়ী হয়েছেন। মন দিয়েছেন সংসার ও ধর্মকর্মে। হঠাৎ আসেন বাংলাদেশে, নির্দিষ্ট কাজ শেষে ফিরে যান।

সম্প্রতি আওয়ামী লীগের হয়ে রাজনীতির সঙ্গে জড়িয়েছেন। স্বামী শিবলি সাদিকের জন্য চেয়েছিলেন মনোনয়ন। সেই প্রচার কার্যক্রমে অংশ নিতেই সর্বশেষ এসেছিলেন বাংলাদেশে।

এই অভিনেত্রী হঠাৎ আলোচনায় এলেন ১০ লাখ টাকার সহায়তা ঘোষণা দিয়ে। আফরোজা সুলতানা রত্না নামের একটি ফেসবুক আইডি থেকে নিজেকে শাবানা দাবি করে এই সহায়তার ঘোষণা দেয়া হয়েছে। এরপর থেকেই বিষয়টি আলোচনায় এসেছে চলচ্চিত্রপাড়ায়।

এ আইডি সত্যিই শাবানার কি না তা নিশ্চিত করতে পারলেন না চলচ্চিত্র সংশ্লিষ্টরা৷ অনেকেই দাবি করছেন, আইডিটি ফেক। অভিনেত্রী শাবানা সোশ্যাল মিডিয়ায় অ্যাক্টিভ নন। কোথাও তার কোনো আইডি নেই।

jagonews24

নাম প্রকাশ না করার শর্তে এক চলচ্চিত্র পরিচালক নেতা বলেন, ‘আমি নিজেও কনফিউশনে পড়ে গেলাম খবরটি শুনে। শাবানা ম্যাডাম তো ফেসবুক বা সোশ্যাল মিডিয়া ব্যবহার করেন না বলেই জানি। তিনি সাদামাটা জীবনযাপন করেন। সংসার আর ইবাদতে কেটে যায় দিন।

অনেক সময় অনেক রকম সহায়তা তিনি করেন। সেটা তার স্বামীর মাধ্যমে। কখনো চলচ্চিত্রের মানুষদের সহায়তা দেন বিভিন্ন সংগঠনে। অথবা নিজে যখন দেশে আসেন গ্রামে গিয়ে সহায়তা করেন। এভাবে ফেসবুকে ঘোষণা দিয়ে সহায়তা করতে কখনো শুনিনি। আমার মনে হয় আইডিটি ফেক। যদি কোনো নিশ্চিত তথ্য হাতে আসে তবে আমি জানাবো।’

ওই আইডি থেকে গত ৮ এপ্রিল লেখা হয়েছে, ‘পরিবারের সবার পরামর্শে একটি ভালো উদ্যোগ নিয়েছি। আগামী রোজা উপলক্ষে সাধারণ মানুষ ও গরিব অসহায়দের জন্য ১০ োখ টাকার কিছু উপহার হিসেবে দিতে চাই। আশা করি পোস্টটি সবাই শেয়ার করবেন ও অন্যদের দেখার সুযোগ করে দেবেন। আশা করি পোস্টটি দ্রুত শেয়ার করে সাধারণ মানুষের কাছে পৌঁছানোর চেষ্টা করবেন। যাতে তাদের হক তারা পায়।’

একই দিন আরও এক স্ট্যাটাসে আইডিটি থেকে লেখা হয়েছে, ‘যাদের বাবা নাই, যাদের স্বামী নাই এবং যে সব ছেলেমেদের বাবা মা নাই। যারা এতিম। তারা লজ্জা না করে আমার কাছে আপনার কষ্টের কথা শেয়ার করেন। আমি আপনাদের রোজা উপলক্ষে কিছু উপহার দিতে চাই। আশা করি সবাই গ্রহণ করবেন বিশেষ করে এতিমরা।


পোস্টটি সবাই ইনশাআল্লাহ শেয়ার করে এতিমদের কাছে পৌঁছায়ে দেবেন। যারা একবেলা খাবার পায় অন্য বেলা পায় না।'

এলএ/এমকেএইচ

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]