ইউনিসেফ ইনোসেন্টি চলচ্চিত্র উৎসবে বাংলাদেশের ‘তিয়াস’

বিনোদন প্রতিবেদক
বিনোদন প্রতিবেদক বিনোদন প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৩:৪০ পিএম, ৩১ মে ২০২১

শিশুদের মানসিকতার সুন্দর বিকাশে কাজ করে জাতিসংঘের বিশেষ সংস্থার ইউনিসেফ। নানা রকম চলচ্চিত্র উৎসব আয়োজন করে থাকে তারা। তার একটি ইউনিসেফ ইনোসেন্টি চলচ্চিত্র উৎসবে। প্রতি বছর ইতালির ফ্লোরেন্স শহরে এটি অনুষ্ঠিত হয়।

সেখানে আমন্ত্রণ পেয়েছে নির্মাতা সুমন রেজার শর্টফিল্ম ‘তিয়াস’। এ নির্মাতা আজ ৩১ মে জাগো নিউজকে তথ্যটি নিশ্চিত করেছেন।

তিনি জানান, ইউনিসেফের উৎসবটি বেশ মর্যাদাপূর্ণ। সেখানে ‘তিয়াস’র অংশ নেয়ার সুযোগ তৈরি হয়েছে। এ প্রসঙ্গে বেশ উচ্ছ্বাস প্রকাশ করে তিনি বলেন, ‘এটা আমার জন্য দারুণ একটি ব্যাপার হতে যাচ্ছে। আমার চলচ্চিত্রের টিম ও সকল কলাকুশলীদের অভিনন্দন জানাই। আশা করছি এই উৎসবে সাফল্যের অংশগ্রহণ হবে আমাদের।’

বহু বছর আগে সুমন রেজার গ্রামে দুই-তিন বাড়ি মিলিয়ে খাওয়ার পানির জন্য একটি টিউবওয়েল বসাত। পথিকেরা সেই টিউবওয়েল থেকে পানি পান করত। এখন প্রতিটি ঘরেই টিউবওয়েল আছে। তবে গোপনীয়তার কারণে সব টিউবওয়েল এখন ঘরের আঙিনায় চলে গেছে! সেখান থেকেই ‘তিয়াস’ নামে একটি স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র নির্মাণের আইডিয়া মাথায় আসে সুমন রেজার।

আইডিয়া কাজে লাগিয়ে শর্টফিল্মটি বানিয়েও ফেলেন তিনি। নাম রেখেছেন ‘তিয়াস’। ১৫ মিনিটের এই ছবিটি এখন দেশের গণ্ডি ছেড়ে বিদেশেও প্রশংসিত হচ্ছে। আন্তর্জাতিক চলচিত্র জগতে বাংলাদেশের নাম তুলে ধরেছে স্বল্পদৈর্ঘ চলচিত্র ‘তিয়াস’।

সম্প্রতি ইতালির ‘VOLTERRA FANTASY FILM FESTIVAL’ ও আমেরিকার Fillum International Storical & Short Film Festival (FISSF) গুলোতে মনোনীত হয়েছে। শুধু তাই নয়, ছবিটি ইতালির ফিল্ম উৎসবে কোয়ার্টার ফাইনালিস্ট হিসেবে প্রতিযোগিতা করছে।’

সুমন জানান, ‘বাংলাদেশ স্বল্পদৈর্ঘ্য ও প্রামাণ্য চলচ্চিত্র উৎসব ২০২১’-এও মনোনীত হয়েছে নির্মাতা সুমন রেজার শর্ট ফিল্ম ‘তিয়াস’। বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমি আয়োজিত এই উৎসবে ৭ জুন বিকাল সাড়ে চারটায় একযোগে ৬৪ জেলায় প্রদর্শিত হবে চলচ্চিত্রটি।

‘তিয়াস’ - এ মুখ্য দুই চরিত্রে অভিনয় করেছেন জামশেদ শামীম ও আসপিয়া ওহি। ‘পৃথিবীর তিন ভাগের দুই ভাগ পানি। কিন্তু খাওয়ার উপযোগী কতটুকু? আর সেটা কতটা নাগালের মধ্যে?’ এমন সংলাপ দিয়ে শুরু হয় স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্রটি।

প্রসঙ্গত, ২০১৪ সাল থেকে সুমন রেজা নাটক বানান। ‘দেব্বু’, ‘দুষ্ট হাওয়া’, ‘রাত আঁধারী’, ‘বিষ পান করবে না’, ‘কাগজে লিখো না’, ‘এই জোছনা’, ‘নয়া কুটুম’ প্রভৃতি তাঁর একক নাটক। ‘টিভি পরিবার’, ‘ক্লাব বি পজিটিভ’, ‘কুটুম বাড়ি’ নামে ধারাবাহিকও বানিয়েছেন।

‘তিয়াস’ - এর আগে ‘বিয়ের গল্প’, ‘সন্তান’, ‘সিটি নাইট’, ‘আগুন’ নামে স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্রও বানিয়েছেন সুমন।

এলএ/এমএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]