কোয়ারেন্টাইন শেষে বাড়ি ফিরলেন মীরাক্কেলের রানারআপ উচ্ছ্বাস

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি দিনাজপুর
প্রকাশিত: ০৯:০৯ পিএম, ১১ জুন ২০২১

শেষ হলো ভারতীয় চ্যানেল জি-বাংলার জনপ্রিয় রিয়েলিটি শো মীরাক্কেল আক্কেল চ্যালেঞ্জারের ১০তম মৌসুম। এবারের আসরে দ্বিতীয় রানারআপ হয়েছেন দিনাজপুরের বিরামপুরের সন্তান তৌফিক এলাহী আনসারী উচ্ছ্বাস।

মীরাক্কেলের পুরস্কার জিতে বৃহস্পতিবার (১০ জুন) নিজ বাড়িতে ফিরেছেন উচ্ছ্বাস। দেশে ফিরে তিনি নিয়ম মেনে কুষ্টিয়ায় কোয়ারেন্টাইনে ছিলেন। কোয়ারেন্টাইনের মেয়াদ শেষ হওয়ায় তিনি বাড়িতে ফেরেন।

উচ্ছ্বাস রংপুর কমিউনিটি মেডিকেল কলেজে এমবিবিএসের শিক্ষার্থী। তার গ্রামের বাড়ি বিরামপুর পৌর শহরের ৫নং ওয়ার্ডের ঘাটপাড় গ্রামে।

তার বাবা ডা. মোকলেছুর রহমান রংপুর মেডিকেল কলেজের চক্ষু বিভাগের বিভাগীয় প্রধান। আর উচ্ছ্বাসের মা ডা. তাহেরা খাতুন বিরামপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের মা ও শিশুস্বাস্থ্য বিষয়ক মেডিকেল অফিসার।

জানা গেছে, গত বছরের ২৭ সেপ্টেম্বর করোনা পরিস্থিতির মধ্যে উচ্ছ্বাসসহ চারজন প্রতিযোগী কলকাতাপর্বে অংশ নেয়ার সুযোগ পেয়েছিলেন। গ্র্যান্ড ফিনাল পর্বে অংশ নিতে গত মাসে আবারও কলকাতায় যান উচ্ছ্বাস।

৩০ মে রাতে চূড়ান্ত পর্বের অনুষ্ঠানে বিজয়ীদের নাম ঘোষণা করা হয়। এতে তিনি দ্বিতীয় রানারআপ হন। তার সঙ্গে যৌথভাবে রানারআপ হন ভারতের পশ্চিমবঙ্গের প্রতিযোগী পার্থ সারথি।

জানা গেছে, শুভঙ্কর চট্টোপাধ্যায়ের পরিচালনায় অনুষ্ঠিত ‘মীরাক্কেল আক্কেল চ্যালেঞ্জার’র মধ্যমণি ও উপস্থাপক মীর আফসার আলী। প্রতিবার মূল পর্বগুলোতে শ্রীলেখা মিত্র, রজতাভ দত্ত ও পরান বন্দ্যোপাধ্যায় বিচারকের দায়িত্ব পালন করলেও এবার ছিলেন না তাদের কেউ।

এ আয়োজনে নতুন বিচারক হিসেবে যোগ দেন চিত্রনায়িকা পাওলি দাম ও সায়ন্তিকা বন্দ্যোপাধ্যায়। সঙ্গে ছিলেন অভিনেতা বিশ্বনাথ বসু ও কাঞ্চন মল্লিক।

এমদাদুল হক মিলন/এএএইচ/এমএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]