গান গেয়ে ২৬ বছর বয়সেই শত কোটি টাকার মালিক

বিনোদন ডেস্ক
বিনোদন ডেস্ক বিনোদন ডেস্ক
প্রকাশিত: ০১:৫৪ পিএম, ১৪ অক্টোবর ২০২১

বিশ্ব সংগীতে নতুন উন্মাদনার নাম বিটিএস। এটি হলো ৭ সদস্যের দক্ষিণ কোরিয়ান একটি ছেলেদের ব্যান্ড। যারা বাংতান বয়েজ নামেও পরিচিত। অনেকে তাদের বিটিএস আর্মি বলেও ডেকে থাকেন। এরইমধ্যে কিছু বিগ হিট অ্যালবাম ও গান দিয়ে গানের এই দলটি দুনিয়া মাতিয়েছে।

যেমন পেয়েছে জনপ্রিয়তা ও সুনাম তেমনি এর সদস্যরা আয় করেছেন কাড়ি কাড়ি টাকা। সেই টাকায় ব্যান্ড সদস্যরা উপভোগ করেন বিলাসী জীবন।

বিটিএসের অন্যতম সদস্য গায়ক ও গীতিকার পার্ক জিমিন। যার জীবন যাপন খুব আলোচনায় থাকে ভক্তদের। তাকে নিয়ে আন্তর্জাতিক নানা গণমাধ্যমে দেখা যায় অনেক তথ্য ও ফিচার। সম্প্রতি ভারতের কইমই ডটকম এক প্রতিবেদনে জানিয়েছে জিমিনের বিলাসী জীবনের নানা কথা।

সেখানে বলা হয়েছে জিমিন একজন ফ্যাশন সচেতন ও স্টাইলিশ গায়ক। পোশাক ও ফ্যাশনের নানা অনুষঙ্গের প্রতি তার অনেক আগ্রহ। পোশাক ছাড়াও বিটিএস আর্মি জিমিনের দামী জিনিসপত্রের প্রতি দারুণ ঝোঁক রয়েছে। তার পছন্দ ও সংগ্রহের একটি দীর্ঘ তালিকা রয়েছেও।

২০১৭ সালে একটি বিলবোর্ড কভার ফটোশুট করেন জিমিন। সেখানে তিনি যে কালো সোয়েড জ্যাকেটটি পরেন তার দাম ছিলো ৫৭৫৪ ডলার। টাকায় যার পরিমাণ ৪ লাখ ৯১ হাজার ২৩১ টাকা।

তিনি আরও জ্যাকেট পরেন সেই ফটোশুটে। সেটির মূল্য ছিলো সাড়ে তিন লাখেরও বেশি।

একটি প্রতিবেদন অনুসারে, বিটিএস গায়ক একটি লাইভ স্ট্রিমের জন্য প্রায় ২ লাখ টাকা মূল্যের পোশাক পরেন। তার শার্টের জ্যাকেট আনুমানিক ১৪৫০ ডলারের হয়। তিনি গুচি স্লিপার পরেন যার মূল্য ৮০০ ডলার।

জিমিন দক্ষিণ কোরিয়ার নাইন ওয়ান হান্নামে ৫.৭ মিলিয়ন ডলার (৪৮ কোটি ৬৬ লাখেরও বেশি টাকা) মূল্যের একটি অ্যাপার্টমেন্ট কিনেছেন। তিনি আরও একটি ফ্ল্যাটের জন্য বিনিয়োগ করেছেন, যার জন্য ৩.৯ মিলিয়ন ডলার খরচ করতে হচ্ছে তাকে।

জিমিন গতকাল ১৩ অক্টোবর তার জন্মদিন উদযাপন করেছেন। এবারে তিনি ২৬ বছরে পা রেখেছেন। এই অল্প বয়সেই জিমিন উপার্জন করে নিয়েছেন শত শত কোটি টাকা। আর তার আয়ের একমাত্র উৎস গান। যা তিনি বিটিএসের হয়ে কনসার্ট, হিট অ্যালবাম, চার্টের শীর্ষে ট্রেন্ডিংয়ে থাকার মাধ্যমে আয় করেন।

এলএ/জিকেএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]